× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ১ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

মা-ভাইবোনসহ পরিবারের পাঁচজনকে এসিডে ঝলসে দিয়েছে যুবক

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার
২১ এপ্রিল ২০২১, বুধবার

মা-ভাইবোন সহ পরিবারের পাঁচজনকে এসিডে ঝলসে দিয়েছে এক যুবক। এ ঘটনায় নিজের গায়েও এসিড ঢেলে দেয় সে। গতকাল ভোরে রাজধানীর লালবাগের কাশমেরিটোলার ১৫/২ নম্বর বাসায় এই ঘটনা ঘটে। পরে তাদেরকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। পরিবারের সদস্যরা জানান, ওই দগ্ধ যুবক মাদকাসক্ত ও মানসিক ভারসাম্যহীন। তার নাম আলী হোসেন। দগ্ধ অন্যরা হচ্ছেন, তার মা মোমেনা বেগম, দুই ভাই আনোয়ার হোসেন ও ইকবাল হোসেন, বোন জামিলা আক্তার এবং ভাগিনা সালেহীন। এদের মধ্যে আলী হোসেনকে হাসপাতালে ভর্তি করেছেন চিকিৎসকরা।
তাকে পুলিশ পাহারায় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। লালবাগ থানার এসআই অমিতাব দর্জি চন্দ্র জানান, আলী হোসেন একটি ব্যাটারি কারখানায় কাজ করে। গতকাল ভোরে পরিবারের সঙ্গে কোনো বিষয় নিয়ে ঝগড়া লাগে। এক পর্যায়ে আলী হোসেন ব্যাটারিতে ব্যবহৃত এসিড এনে মাসহ পরিবারের পাঁচজনের শরীরে ছুড়ে মারে। এরপর আলী হোসেন নিজের শরীরেও এসিড ঢেলে দেয়। তাৎক্ষণিকভাবে তাদেরকে চিকিৎসার জন্য শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হয়। জামিলা, ইকবাল ও সালেহীনের চোখে এসিড লেগেছে। তাদের তিনজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে আগারগাঁও জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আর মোমেনা বেগমকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। আলী হোসেনকে ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে। ৯৯৯-এর পরিদর্শক আনোয়ার সাত্তার জানান, কাশমেরিটোলা এলাকার এক ব্যক্তি ৯৯৯-এ ফোন করে এসিডের বিষয়টি অবহিত করে। পরে বিষয়টি লালবাগ থানা পুলিশকে দ্রুত জানানো হয়। দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে পুলিশ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর