× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ১ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ
পদ্মাসেতু প্রকল্পের কাজ পেতে ঘুষের অভিযোগ

বিশ্বব্যাংকের নিষিদ্ধ তালিকা থেকে মুক্তি পেল এসএনসি-লাভালিন

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(৩ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ২১, ২০২১, বুধবার, ৮:৩১ পূর্বাহ্ন

বিশ্বব্যাংকের নিষিদ্ধের তালিকা থেকে মুক্তি মিলেছে কানাডার বহুল আলোচিত কোম্পানি এসএনসি-লাভালিনের। বাংলাদেশ এবং কম্বোডিয়ায় কাজ পাওয়ার জন্য বড় দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে এই কোম্পানিটি ১০ বছরের জন্য বিশ্বব্যাংকের কালোতালিকাভুক্ত হয়ে নিষিদ্ধ হয়। সেই শাস্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ২০২৩ সালে। কিন্তু কোম্পানিটি আন্তর্জাতিক আর্থিক সব নিয়মনীতি মেনে চলার কারণে বিশ্বব্যাংক দু’বছর আগেই তাদের শাস্তি মাফ করে দিয়েছে। কানাডিয়ান প্রেসের উদ্ধৃতি দিয়ে এ খবর দিয়েছে অনলাইন টরন্টো স্টার। উল্লেখ্য, বাংলাদেশে পদ্মাসেতু প্রকল্পের কাজ পাওয়ার জন্য তারা বাংলাদেশি একজন কর্মকর্তাকে ঘুষ দিয়েছিল বলে অভিযোগ ওঠে। এমন অভিযোগে অভিযুক্ত হন কোম্পানিটির দু’জন এক্সিকিউটিভ। এ অভিযোগে পদ্মাসেতু প্রকল্পে ১২০ কোটি ডলার ঋণ দেয়া বন্ধ করে দেয় বিশ্বব্যাংক।
ওদিকে কানাডার মামলায় আদালতে প্রমাণ হিসেবে প্রসিকিউশন যে কথোকথনের ডকুমেন্ট প্রমাণ হিসেবে উপস্থাপন করে, তা বাতিল করে দেয় আদালত এবং একই সঙ্গে ওই মামলা খারিজ করে দেয়।
মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে কুইবেকের মন্ট্রিলভিত্তিক কোম্পানিটি বলেছে, তাদের ওপর যে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছিল তা প্রত্যাহারে রাজি হয়েছে আন্তর্জাতিক অর্থ প্রতিষ্ঠান বিশ্বব্যাংক। এর অর্থ হলো এখন বিশ্বব্যাংক ও আঞ্চলিক বিভিন্ন ব্যাংকের অর্থায়নে যেকোন দরপত্রে অংশ নিতে এবং কাজ করতে সক্ষম হবে এসএনসি লাভালিন। এসব ব্যাংক আগামী জুনের শেষ পর্যন্ত উন্নয়নশীল দেশগুলোতে ১৬,০০০ কোটি ডলারের কাজ করবে বলে আশা করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, দুর্নীতির অভিযোগে বিশ্বজুড়ে ব্যাপকভাবে সুনাম ক্ষুন্ন হয় এসএনসি লাভালিনের। বিশেষ করে বাংলাদেশে পদ্মাসেতু প্রকল্পের কাজের কন্টাক্ট পেতে তারা ঘুষ দিয়েছিল বলে যে অভিযোগ আছে, তার প্রেক্ষিতে কোম্পানিটিকে নিষিদ্ধ করা হয়। কিন্তু তারা আশা করছে বিশ্বব্যাংক নিষিদ্ধের তালিকা থেকে তাদের নাম প্রত্যাহার করার ফলে কোম্পানির সুনাম ফিরে আসবে। ২০১৩ সালে বিশ্বব্যাংক যখন এসএনসি লাভালিনের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়, তখন বলা হয়, তাদেরকে ১০ বছর কালোতালিকাভুক্ত করা হবে এ যাবতকালের দীর্ঘদিনের নিষেধাজ্ঞা। তবে বিশ্বব্যাংকের বেঁধে দেয়া নিয়মনীতি অক্ষরে অক্ষরে পালন করার ফলে তাদের সেই ১০ বছরের শাস্তি কমিয়ে আট বছর করা হয়েছে। এসএনসি লাভালিনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়ান এডওয়ার্ড বলেছেন, ২০১২ সাল থেকেই ‘হোমওয়ার্ক করেছে’ তার কোম্পানি।
২০০১ থেকে ২০১১ সালের মধ্যে লিবিয়ায় কর্মকা-ের জন্য রয়েল কানাডিয়ান মাউন্ডেট পুলিশ ২০১৫ সালে প্রতারণা এবং দুর্নীতির অভিযোগে মামলা করে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে সেই মামলা স্থগিত করতে পুলিশের সঙ্গে একটি চুক্তি করে এসএনসি লাভালিন। এর মধ্যে রয়েছে ২৮ কোটি ডলারের জরিমানা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর