× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ১ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

করোনা: টুইটারে চিকিৎসার জন্য সাহায্য চাইতে চাইতে ভারতীয় সাংবাদিকের মৃত্যু

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(৩ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ২১, ২০২১, বুধবার, ৬:৩৬ অপরাহ্ন

টুইটারে নিজের সর্বশেষ আপডেট দিতে দিতে কোভিড আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন এক ভারতীয় সাংবাদিক। শেষ সময়ে তিনি কর্তৃপক্ষের থেকে সাহায্য কামনা করছিলেন। এই ঘটনার মাধ্যমে বৈশ্বিক করোনাভাইরাস সংক্রমণের এপিসেন্টার হয়ে ওঠা ভারতের চলমান সংকটের ভয়াবহতা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। বিনয় শ্রীভাস্তাভা নামের ওই সাংবাদিক ভারতের উত্তর প্রদেশের বাসিন্দা ছিলেন। তিনি তার এলাকার ভক্সগুর স্বাস্থ্যব্যবস্থা নিয়ে একের পর এক টুইট করেছেন। গত ১৬ এপ্রিল তিনি লিখেন, আমার বয়স ৬৫ বছর এবং আমার অক্সিজেনের লেভেল কমে ৫২তে নেমে এসেছে। কিন্তু কোনো হাসপাতাল, ল্যাব বা চিকিৎসক আমার ফোন তুলছে না। তবে তার টুইটের পর তাকে সাহায্য করতে আগ্রহ প্রকাশ করেন উত্তর প্রদেশের কয়েকজন সরকারি কর্মকর্তা এবং কিছু সাধারণ মানুষও।

১৭ এপ্রিল তার ওই টুইট ভাইরাল হয়ে যায়।
ওইদিন দুপুর ২ টা ২ মিনিটে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগি আদিত্যনাথের উপদেষ্টা শালাভ মানি ত্রিপাঠি ওই সাংবাদিকের কাছে তার পূর্ন বিবরণ চেয়ে টুইট করেন। ২ টা ৩৬ মিনিটে সাংবাদিক বিনয় তার বিবরণ দিয়ে টুইট করেন। এরপর ৩ টা ১৫তে তিনি আবারো প্রশ্ন করেন, কখন তার জন্য সাহায্য আসবে। এর দুই মিনিট পর তিনি তার অক্সিজেন লেভেল দেখিয়ে একটি ছবি পোস্ট করেন। এতে দেখা যায় তার অক্সিজেন লেভেল তখন ছিল ৩১। অক্সিজেনের মাত্রা ১০০ তে ৯৪ এর নিচে নেমে এলেই তাকে ঝুকিপূর্ণ বিবেচনা করা হয়।

এসময় অনেক টুইটার ব্যবহারকারী তাকে ধৈর্য্য ধরতে বলেন এবং সরকারের ওপর ভরসা রাখতে বলেন। কিন্তু ৪ টা ২১ মিনিটে সাংবাদিক বিনয়ের ছেলে হারশিত শ্রীভাস্তাভা টুইট করে জানান যে, তার বাবা মারা গেছেন। এসময় তিনি ভুয়া প্রতিশ্রুতি দেয়ায় সরকারের প্রতি ক্ষোভ প্রদর্শণ করেন। দ্যা প্রিন্টকে তিনি জানান, তার বাবাকে অন্তত ৩টি হাসপাতাল চিকিৎসা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিল। এরমধ্যে একটি হাসপাতাল তার কাছে উর্ধতন কোনো কর্মকর্তার থেকে লিখিত চিঠি চেয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে বিনা চিকিৎসায় মারা যেতে হয়।

উল্লেখ্য, ভারতে প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা শনাক্তের সংখ্যা। দেশটিতে বুধবার প্রায় ৩ লাখ মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৫৫ লাখ মানুষ। এরমধ্যরা প্রাণ হারিয়েছেন ১ লাখ ৮১ হাজার জন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর