× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৩ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩০ রমজান ১৪৪২ হিঃ
দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট

লকডাউনে ২৫ টাকার ভাড়া ২০০ টাকা

বাংলারজমিন

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি
২২ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার

 দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে লকডাউনেও থেমে নেই পারাপার। দিনের বেলায় লঞ্চ ও ফেরি বন্ধ থাকায় যাত্রীরা ট্রলারে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পদ্মা নদী পার হচ্ছেন। এ সুযোগে ২৫ টাকার ভাড়া আদায় করা হচ্ছে ২০০ টাকা। করোনায় দেশব্যাপী লকডাউন থাকায় সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে লঞ্চ ও ফেরি চলাচল বন্ধ থাকছে। তবে ব্যস্ততম এই নৌরুটে থেমে নেই যাত্রী পারাপার। লকডাউনের ৯ম দিনেও কঠোর নজরদারিতে ছিল দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট। স্বাভাবিক ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে জরুরি প্রয়োজনে মাত্র ৩টি ফেরি চালু রাখা হয়েছে।
এ দিয়ে পারাপার চলছে এম্বুলেন্সসহ জরুরি প্রয়োজনীয় গাড়িগুলো। ফেরিতে যাত্রী বহন নিষিদ্ধ থাকায় দূর-দূরান্ত থেকে আসা যাত্রীদের ঝুঁকি নিয়ে ট্রলারযোগে নদী পার হতে দেখা যায়। যাত্রীদের দাবি, রাতের বেলায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক থাকায় তারা ঘাটে আসছেন। কিন্তু তাদের ফেরিতে উঠতে দেয়া হচ্ছে না। এতে তারা ঝু্‌ঁকি নিয়ে ট্রলারযোগে নদী পার হতে বাধ্য হচ্ছেন। এ সময় তাদের কাছ থেকে ২৫ টাকার ভাড়া ২০০ আদায় করা হচ্ছে। গতকাল বিকালে ট্রলারযোগে শত শত যাত্রীকে পদ্মা নদী পার হতে দেখা যায়। এ সময় যশোর, কুষ্টিয়া, মাগুরা, ঝিনাইদহ, ফরিদপুর থেকে আসা যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তারা পথে পথে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েছেন। তবে দৌলতদিয়ায় নদী পার হতে তাদের আরো বেশি ভাড়া গুনতে হচ্ছে। তারা আক্ষেপ করে বলেন, লকডাউন শুধু খেটে খাওয়া মানুষের জন্য। বড়লোকদের জন্য নয়। বড়লোকের গাড়ি চলাচল করছে তাতে কোনো বাধা নেই। শুধু গণপরিবহন বন্ধ রেখে আমাদের মতো গরিবদের কষ্ট দেয়া হচ্ছে। কয়েকজন লঞ্চ শ্রমিক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ট্রলার যোগে শত শত যাত্রী ঠিকই পার হচ্ছে। অথচ লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। ঈদের সামনে লঞ্চ শ্রমিকদের উপায় কি? সীমিত আকারে লঞ্চ চালু থাকলে আমাদের মতো লঞ্চ শ্রমিকদের অনাহারে দিন কাটাতে হতো না। এ ব্যাপারে দৌলতদিয়া ঘাট বিআইডব্লিউটিসির এজিএম ফিরোজ শেখ বলেন, এ রুটে দিনের বেলার স্বাভাবিক ফেরি চলাচল বন্ধ। তবে কাঁচামাল ভর্তি ট্রাক, ফলের ট্রাক, এম্বুলেন্স ও অন্যান্য জরুরি প্রয়োজনীয় গাড়ি পারাপারের জন্য স্বল্পসংখ্যক ফেরি চালু আছে। রাতের বেলায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও গাড়ির সংখ্যা খুবই কম। তবে সরকারিভাবে নিষিদ্ধ থাকায় ফেরিতে কোনো যাত্রী পারাপার করা হচ্ছে না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর