× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৫ মে ২০২১, শনিবার, ২ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

বাঁশখালীতে গুলিবিদ্ধ আরো ২ শ্রমিকের মৃত্যু

অনলাইন

বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি
(৩ সপ্তাহ আগে) এপ্রিল ২২, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১০:৪৬ পূর্বাহ্ন
ফাইল ফটো

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর গন্ডামারায় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে গুলিবিদ্ধ মো. শিমুল (২৩) ও রাজিউল ইসলাম (২৫) নামে আরো দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো সাত জনে।

মো. শিমুল চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও রাজিউল ইসলাম বেসরকারি পার্কভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। শিমুল মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার আব্দুল মালেকের ছেলে। রাজিউল দিনাজপুরের ফুলবাড়ি উপজেলার বেতদিঘি গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিউল কবির। তিনি বলেন, বুধবার বিকাল সাড়ে ৫ টায় গুলিবিদ্ধ শ্রমিক শিমুল চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। আর রাজিউল ইসলাম বুধবার দিবাগত রাতে নগরীর পাঁচলাইশের পার্কভিউ হাসপাতালে মারা যায়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
No name
২২ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার, ২:৫৫

People's lives are valueless? Unfortunately we're born here....

jashim uddin khan
২২ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১১:৪০

ইন্না লিল্লাহে ওয়াইন্না ইলাইহে রাজেউন। কেন মারা গেল ওরা? ওরা বেতনের দাবীতে আন্দোলন করেছে। ওরা কারা? ওরা শ্রমিক। কিভাবে মরল? পুলিশের গুলিতে। তারপর কি হল? কি আর হবে পুলিশ মামলা করেছে, বেনামী হাজার হাজার লোকের বিরুদ্ধে। তার পর? তার পর যা হওয়ার তাই। পুরুষরা এলাকা ছাড়া। এইদিকে পুলিশ যাকেই ইচ্ছা তাকে ধরে ঐ মামলায়------- আচ্ছা গুলি ও করল পুলিশ, মামলাও করল পুলিশ, তদন্ত ও করবে পুলিশ। বিছার করবে আদালত। বিচার শেষ হতে 20-30 বছর ও লাগতে পারে অথবা বিচার শেষ না ও হতে পারে। বিচারে সব আসামী বেখছুর খালাস হয়ে যাবে হয়তো। কিন্তু সাধারন পাবলিক যারা মরেছে, যারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, যারা হয়রনির শিকার হয়েছে। যারা মামলার আসামী হয়ে হেনস্তা হয়েছে। তাদের সেই অপূরনীয় ক্ষতির কি হবে? আর যারা হাজার হাজার মানুষকে আসামী করে মামলা দিল, কয়েক বছর ধরে তদন্ত করল, অবশেষে চার্জসিট দিল । এবং মামলায় হেরে গেল। তাদের এহেন কর্মকান্ডের কি জবাব আছে সরকারের কাছে। সাধারন মানুষ আর কত দিনইবা মূখ বুঝে সহ্য করবে।

অন্যান্য খবর