× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৬ মে ২০২১, রবিবার, ৩ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

মৌলভীবাজারের জ্যোৎস্না ইসলাম লন্ডনের ডেপুটি মেয়র

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, মৌলভীবাজার থেকে
৩ মে ২০২১, সোমবার

কাউন্সিলর জ্যোৎস্না ইসলাম লন্ডন বারা অব রেডব্রিজের ডেপুটি মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। এটি বৃটেনের মূল ধারার রাজনীতিতে বাংলাদেশি মহিলার অনন্য সাফল্য বলে মন্তব্য করছেন সেখানকার বাঙালি কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ। মৌলভীবাজারের মেয়ে ও সুনামগঞ্জ জগন্নাতপুরের পুত্রবধূ কাউন্সিলর জ্যোৎস্না ইসলাম লন্ডন বারা অব রেডব্রিজের ডেপুটি মেয়র নির্বাচিত হয়ে বাঙালি কমিউনিটির মুখ উজ্জ্বল করেছেন। মৌলভীবাজার জেলা সদরের একাটুনা ইউনিয়নের উত্তরমুলাইম গ্রামের লন্ডনের প্রবীণ ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক মরহুম আলহাজ আব্দুর রহমান (মন্নাফ মিয়া) ও বেগম মুহিবুন্নাহার দম্পতির মেয়ে কাউন্সিলর জ্যোৎস্না ইসলাম। লন্ডন বারা অব রেডব্রিজ কাউন্সিলর হওয়ার পর থেকে সততা, নিষ্ঠা ও নিরলসভাবে কাজ করার প্রেক্ষিতে ২৯শে এপ্রিল কাউন্সিলের বার্ষিক ভার্চ্যুয়াল মিটিংয়ে তাকে এই দায়িত্ব দেয়া হয়। ডেপুটি মেয়র জ্যোৎস্না ইসলামের স্বামী কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব সাম ইসলামও  একই কাউন্সিলের কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এই দম্পতির এক ছেলে ও এক মেয়েসহ লন্ডনের রেডব্রিজেই দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছেন। জ্যোৎস্না ইসলাম ১৯৬৬ সালে লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেন।
মা-বাবার ইচ্ছা ছিল ছেলে-মেয়েরা বাংলাদেশ এবং যুক্তরাজ্য দুই দেশেরই শিক্ষা, শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও সামাজিক পরিবেশে অভ্যস্ত হয়ে ওঠেন। এই কারণেই দেশে মৌলভীবাজারে আলী আমজাদ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও মৌলভীবাজার সরকারি কলেজে লেখাপড়া করেন জ্যোৎস্না ইসলাম। তিনি লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলায়ও পারদর্শী ছিলেন। ১৯৮৬ সালে লন্ডনে ফিরে এসে লোকাল গভর্নমেন্ট এ চাকরির পাশাপাশি এম বি এ করেন। বর্তমানে তিনি রেডব্রিজ লেবার পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। যুক্তরাজ্য বাংলাদেশি কমিউনিটি লিডার মকিস মনসুর মানবজমিনকে বলেন, জ্যোৎস্না ইসলাম রেডব্রিজের কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর তার কর্মদক্ষতা সততা ও নিষ্ঠার কারণে আজ এই সাফল্য এসেছে। তিনি বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। তার অব্যাহত সাফল্য কামনা করছি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর