× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৬ মে ২০২১, রবিবার, ৩ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

নাজাতের দশক

খোশ আমদেদ মাহে রমজান

মাওলানা এম এ করিম ইবনে মছব্বির
৩ মে ২০২১, সোমবার

১৪৪২ হিজরির একুশ রোজা আজ। মাহে রমজানের শেষ দশকে নাজাত দিবসের বদৌলতে যেমন রোজা পালনকারী ব্যক্তির মাতা-পিতাকে দোজখের আগুন থেকে নাজাত দেয়া হয়, এমন কি নাজাতের দশকে কোন রোজা পালনকারী ব্যক্তি মৃত্যুবরণ করলে সেও দোজখ থেকে মুক্তি পায়। ঠিক তদ্রূপ মাহে রমজানের রোজা এবং রোজার শেষে আল্লাহর কয়েকটি নির্দেশনাবলী মেনে চলতে পারলে দুনিয়া ও আখেরাতের অনেক আজাব থেকেও নাজাত পাওয়া যায়। পবিত্র মাহে রমজান মানুষের জীবনকে সম্পূর্ণ ভাবে আত্মসংযমের অনুশীলন করতে রমজান উদ্যমী ভূমিকা পালন করে। রমজান মাস মানব জীবনকে পাপ ও পঙ্কিলতামুক্ত জীবন পরিচালনা করতে সহায়তা করে। রমজানের প্রথমদিক থেকেই আমরা মহান আল্লাহর আদেশ ও নিষেধের সকল বাণীসমূহকে ফলোআপ করে আত্মসংযমী হওয়ার চেষ্টা করি। পবিত্র কোরআনুল করিমে সূরায়ে হুযরাতে মহান আল্লাহর ঘোষণা- ফাতাবাইয়ানু, অর্থাৎ বর্ণনা বা বয়ানের আদেশ, নিষেধসমূহকে মেনে চলা। এবং ফাআছলিহু, অর্থাৎ মুসলমানদের মধ্যে ছুলেহ বা আপোষ মীমাংসা করা।
ওয়া আকছিতু,অর্থাৎ ইনছাফ বা ন্যায়ভিত্তিক কাজ করা। লা ইয়াছখারু, অর্থাৎ একে অন্যকে নিয়ে মজাক, ঠাট্টা না করা। ওয়ালা তালমিজু,অর্থাৎ একে অন্যের প্রতি স্ক্যান্ডাল বা বদনাম অথবা দুর্নাম না করা। ওয়ালা তানাবারু বিল আলকাব। অর্থাৎ খারাপ উপাধিতে কাউকে ভূষিত না করা। লা ইয়াগতাব, অর্থাৎ একে অন্যর গীবত না করা। লা তাজাছ্‌ছাছু। অর্থাৎ কারো ঠোঁটের মাঝে না উঠা, যেমন, একজনকে খুশি করার জন্য অন্যজনকে মন্দ বলে ঠোঁটে না উঠা। ইযতানিবু কাছিরাম মিনায জান্নি। অর্থাৎ বদ, খারাপ সন্দেহ থেকে বেঁচে থাকা। পবিত্র রমজান মাসে পবিত্র কোরআনের উপর উল্লিখিত নির্দেশনা মেনে চলাই হবে উত্তম পন্থা। মহান আল্লাহ পাক আমাদিগকে উপরোল্লিখিত দোষত্রুটি থেকে বেঁচে থাকার তওফিক দান করুন। আমীন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর