× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২০ জুন ২০২১, রবিবার, ৮ জিলক্বদ ১৪৪২ হিঃ

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী অনুপ ভট্টাচার্য আর নেই

বিনোদন


৬ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী ও প্রখ্যাত সুরকার অনুপ ভট্টাচার্য আর নেই। রাজধানীর গেন্ডারিয়ার আসগর আলী হাসপাতালে আজ রাত আনুমানিক সাড়ে ৭টায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, অনুপ ভট্টাচার্যকে মৃত অবস্থাতেই ৭টা ৪০ মিনিটে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। উনাকে নিয়ে আসেন তার ভাগ্নে। রোগী শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। তবে তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন না। তাকে হাসপাতালে আনার পর মৃত ঘোষণা করা হয়।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৭৬ বছর৷ জানা গেছে, আজ হঠাৎ শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন অনুপ ভট্টাচার্য। পরে তাকে পরিবারের সদস্যরা হাসপাতালে নিয়ে আসেন৷

এদিকে গীতিকবি তপন বাগচী জানিয়েছেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা অনুপ ভট্টাচার্য দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিসে ভুগছিলেন।

তার দুই কন্যা বর্তমানে দেশে রয়েছেন। তার মরদেহ আপাতত বারডেম হাসপাতালের হিমাগারে রাখা হয়েছে। আগামীকাল সকালে তার শেষকৃত্যের উদ্যোগ নেয়া হবে।

১৯৪৫ সালে অনুপ ভট্টাচার্যের জন্ম। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের ‘তীর হারা এই ঢেউয়ের সাগর’ ‘রক্ত দিয়ে নাম লিখেছি’, ‘পূর্ব দিগন্তে সূর্য উঠেছে’, ‘নোঙর তোলো তোলোসহ বেশকটি সমবেত গানে কণ্ঠ দেন তিনি।

এছাড়া অনেক গানেরও সুরারোপ করেন এই গুণী শিল্পী। এর মধ্যে রফিকুল ইসলামের গাওয়া বৈশাখী মেঘের কাছে ও মিতালী মুখার্জির কণ্ঠে ‘সুখ পাখি রে’ গান দুটি ‘জনপ্রিয়’ হয়। অনুপ ভট্টাচার্য রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর