× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৬ জুন ২০২১, বুধবার, ৫ জিলক্বদ ১৪৪২ হিঃ

মোদিকে কটাক্ষ সায়নীর!

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক
৮ মে ২০২১, শনিবার

দিল্লির প্রাণকেন্দ্রে ২০ হাজার কোটি টাকা বাজেটের সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রকল্প। প্রধানমন্ত্রী, উপরাষ্ট্রপতির নতুন বাসভবন ছাড়াও নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের পরিকল্পনা হয়েছে এই প্রকল্পে। ইতিমধ্যেই জরুরি পরিষেবা তকমা পেয়েছে। পরিবেশ সংক্রান্ত ছাড়পত্রও পেয়ে গিয়েছে। এদিকে দেশের অতিমারী পরিস্থিতি ভয়ংকর রূপ নিয়েছে। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। অক্সিজেন, বেডের ঘাটতি কমাতে হিমশিম খাচ্ছে সাধারণ মানুষ। রাজধানী দিল্লির অবস্থাও আশঙ্কাজনক।
এমন পরিস্থিতিতে ভিস্তা প্রকল্প নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে টুইটারে তীব্র কটাক্ষ করলেন তৃণমূলের তারকা সদস্য সায়নী ঘোষ। প্রধানমন্ত্রীর নাম না করলেও টুইটারে ভিস্তা প্রকল্প ও অক্সিজেনের অভাবের ছবি পাশাপাশি পোস্ট করে অভিনেত্রী লিখেছেন, সিতম কি আগমে জ্বলতে রহে আবাম মাগার, জাঁহাপনা হামেশা জাঁহাপনা রহে। এরপরই আবার সায়নী লিখেছেন, প্রচুর মানুষ যখন করোনায় মারা যাচ্ছেন, কিছু মানুষের লজ্জায় মরে যাওয়া উচিত! এর কিছুক্ষণ পরই প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন তৈরির আরও একটি খবর শেয়ার করে সায়নী লিখেছেন, চুল্লু ভর পানি মে। তা আবার পরে ইংরেজিতে অনুবাদও করে দিয়েছেন। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রকল্পের কাজ বন্ধ করার আবেদন সুপ্রিম কোর্টে পৌঁছেছে। সম্প্রতি দিল্লি হাই কোর্টে বিষয়টি উঠেছিল। কিন্তু আদালত প্রকল্প বন্ধ রাখার আবেদনের শুনানি পিছিয়ে দেয় ১৭ মে পর্যন্ত। তার পরই বিষয়টি পৌঁছয় সুপ্রিম কোর্টে। একাধিক বিরোধী দল এবং পরিবেশ কর্মীরা করোনা কালে এ ভাবে সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রকল্প চালিয়ে যাওয়ার তীব্র বিরোধিতা করেন। কিন্তু কোনও কিছুই কার্যত কানে নেয়নি কেন্দ্রীয় সরকার। প্রধানমন্ত্রীর নতুন বাসভবন এবং তার সংলগ্ন এসপিজি অফিসের কাজ আগামী বছর ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করার তোড়জোড় চলছে। কাজ বন্ধ রাখার পক্ষে কয়েক জন আবেদনও করেন। তাদের হয়ে প্রধান বিচারপিতর কাছে যান আইনজীবী সিদ্ধার্থ লুথরা। তাঁর আবেদনের ভিত্তিতে এই মামলা শুনানিতে রাজি হয় সর্বোচ্চ আদালত। তবে ভিস্তার কাজ চালিয়ে যেতে বাধা নেই বলেই জানিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর