× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৫ জুন ২০২১, শুক্রবার, ১৩ জিলক্বদ ১৪৪২ হিঃ

‘খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার অনুমতি নিয়ে খোঁড়া যুক্তি দিচ্ছে সরকার’

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক
(১ মাস আগে) মে ১১, ২০২১, মঙ্গলবার, ১:৫০ অপরাহ্ন

অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার অনুমতি নিয়ে সরকার খোঁড়া যুক্তি দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ দুপুরে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। মির্জা ফখরুল বলেন, শেখ মুজিবুর রহমানও এমন ছিলেন না। তিনিও তার প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে চিকিৎসার সুবিধা দিয়েছেন, ছেড়ে দিয়েছেন। এমনকি তাদেরকে ব্যক্তিগতভাবেও সাহায্য করেছেন। কিন্তু আপনাদের (বর্তমান সরকারের) যোগ্যতা নেই। থাকলে অনেক আগেই খালেদা জিয়াকে ছেড়ে দিতেন।
খালেদা জিয়াকে বিদেশে যেতে অনুমতি না বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, সরকার বলছেন সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে বিদেশে যাওয়ার অনুমতির এমন নজির নেই। কিন্তু ১৯৭৯ সালে আমাদের প্রথম স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলনকারী আ সম আব্দুর রব জেলে ছিলেন।
তখন জিয়াউর রহমান দায়িত্বে ছিলেন। পরে তাকে মুক্তি দিয়ে চিকিৎসার জন্য জার্মানিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। চিকিৎসার পর তিনি সুস্থ হয়ে দেশে এসেছিলেন।

তিনি আরও বলেন, ২০০৮ সালে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকেও তত্ত্বাবধায়ক সরকার সাজা মাফ করে দিয়ে বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠায়। এমন আরও অনেক আছে, আমি নাম বলবো না। অত্যন্ত উচ্চপদস্থ প্রভাবশালী সরকারের কর্মকর্তাই বলব, তার দুই সহদোর ভাই আইনের এই ৪০১ ধারা অনুযায়ী মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। তাদেরকে মাফ করে দিয়ে দেশের বাইরে পাঠানো হয়েছে। কেনো খালেদা জিয়ার বিষয়ে খোঁড়া যুক্তি দিচ্ছেন। সোজা বলে দেন যে আমরা তাকে (বিদেশে যেতে) অনুমতি দেবো না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
কাজি
১২ মে ২০২১, বুধবার, ৭:০২

রাজনীতি বিদরা দেশের হাসপাতাল গুলি উন্নত মানের করেন না, কারণ চিকিৎসার বাহানায় দেশ থেকে পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ বন্ধ হয়ে যাবে। এই একটি নাজুক বাহানায় সাজা প্রাপ্ত হলে পলাতক হতে সাহায্য করে।

No name
১১ মে ২০২১, মঙ্গলবার, ৫:১৮

Sir, Uporer Nirdesh?...

কাজি
১১ মে ২০২১, মঙ্গলবার, ১:১১

১৫ বছর ক্ষমতায় থেকে ও এমন একটি হাসপাতাল বানিয়ে গেলেন না, যেখানে চিকিত্সা বিশ্বাসযোগ্য । তাহলে কিসের জনপ্রতিনিধি ছিলেন ? এখন বাংলাদেশে চিকিত্সা অনেক উন্নতমানের। বিদেশে যাওয়ার দরকার নেই। বিদেশি ডাক্তার গণ আলৌকিক ক্ষমতা রাখে না। যদি আলৌকিক ক্ষমতা থাকত আমাদের আত্মীয়রা মরত না

অন্যান্য খবর