× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৯ জুন ২০২১, শনিবার, ৮ জিলক্বদ ১৪৪২ হিঃ
আলোচিত মিতু হত্যাকাণ্ড

সাবেক এসপি বাবুলকে প্রধান আসামি করে মামলা

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক
(১ মাস আগে) মে ১২, ২০২১, বুধবার, ১:৩০ অপরাহ্ন

চট্টগ্রামে মাহমুদা খানম মিতু হত্যার অভিযোগে চট্টগ্রামের সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে হত্যা মামলা হয়েছে। পাঁচ বছর আগের এই হত্যাকা-ের মামলায় আসামি করা হয়েছে আরও ৭ জনকে।

আজ বুধবার দুপুর পৌঁনে একটায় চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় মামলা দায়ের করেন মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন।

২০১৬ সালের ৫ই জুন চট্টগ্রাম নগরীর নিজাম রোডে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তদের গুলি ও ছুরিকাঘাতে খুন হন মাহমুদা খানম মিতু। ঘটনায় মিতুর স্বামী পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে ফিরে পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় বাদী ছিলেন স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তার।

এরআগে মিতু হত্যার সঙ্গে বাবুল আক্তারের জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআই। আজ বুধবার সকালের ঢাকায় পিবিআইয়ের প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সংস্থার প্রধান ও পুলিশের উপ মহাপরিদর্শক বনজ কুমার মজুদার এ কথা বলেন। তিনি বলেন, মিতু হত্যার সঙ্গে বাবুল আক্তারের জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে পিবিআই। পুরোনা মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন আজই আদালতে দেয়া হবে।।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Mahmud
১৩ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:৫৮

পুলিশ নাকি ৫ বছর আগেই জানতে পেরেছিলো বাবুল আক্তারই এই হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে । তা'হলে এতোদিন পুলিশ চুপ করে ছিলো কেন ? বাবুল আক্তার নাকি এরই মধ্যে বিয়েও করেছে । বুঝা যায় সে পুলিশকে ম্যানেজ করে ফেলেছিলো । পাঁচ বছর পর সে ম্যানেজ কেনো আনম্যানেজ হয়ে গেলে সেটাই প্রশ্ন ।

কাসেম আবুল
১২ মে ২০২১, বুধবার, ২:৪৯

মিতু হত্যা নিয়ে পুলিশ কত যে নাটক করছে, শেষ পযর্ন্ত প্রমাণ পেয়েছে এস পি মাধ্যমে এই ঘটনা হয়েছে, তাইতো উপযুক্ত বিচার চাই।

Kazi
১২ মে ২০২১, বুধবার, ১২:৫২

মানুষ কত বড় নিষ্ঠুর হলে নিজের জীবন সঙ্গিনীকে হত্যা করে । আইন প্রয়োগকারী হয়ে এমন নিষ্ঠুর কাজের জন্য ফাঁসি হবে এটাই আশা রাখি।

অন্যান্য খবর