× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২১ জুন ২০২১, সোমবার, ৯ জিলক্বদ ১৪৪২ হিঃ
এপির রিপোর্ট

এশিয়াজুড়ে বিস্ফোরণের মতো ছড়িয়ে পড়ছে করোনা- রেড ক্রস

বিশ্বজমিন

  মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) মে ১৩, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৯:০৩ পূর্বাহ্ন

করোনা ভাইরাস বিস্ফোরণের মতো ছড়িয়ে পড়ছে এশিয়াজুড়ে। এ সতর্কবাণী দিয়েছে আন্তর্জাতিক রেড ক্রস। তারা বলেছে, গত দু’সপ্তাহে এশিয়া এবং প্যাসিফিক অঞ্চলে কমপক্ষে ৫৯ লাখ মানুষ করোনা ভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। সতর্কতায় বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাসের এই উত্তাল ঢেউ হাসপাতাল এবং স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে ঠেলে দিচ্ছে। বিশ্বে করোনা সংক্রমণ দ্বিগুন হচ্ছে এমন ১০টি দেশের মধ্যে ৭টিই এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চলের। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা এপি। এতে আরো বলা হয়, সংক্রমণ দ্বিগুন হতে লাওসের সময় লেগেছে মাত্র ১২ দিন। ভারতে সংক্রমণ দ্বিগুন হয়েছে দু’মাসে।
এই সংখ্যা দুই কোটি ৩০ লাখের বেশি। রেড ক্রস বুধবার বলেছে, অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির ‘আওয়ার ওয়ার্ল্ড ইন ডাটা’ রিপোর্ট করেছে যে, দু’সপ্তাহে এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চলে নতুন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৫৯ লাখ মানুষ। এসব অঞ্চলে এই সরকারি হিসাবের বাইরে আক্রান্তের সংখ্যা বহুগুন বলে ধারণা করা হয়। রেড ক্রসের এশিয়া প্যাসিফিক পরিচালক আলেকজান্দার ম্যাথিউ বলেছেন, এশিয়াজুড়ে কোভিড-১৯ বিস্ফোরণের মতো ছড়িয়ে পড়ছে। হাসপাতালগুলো এবং স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলো রোগীতে উপচে পড়ছে। যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ এবং আফ্রিকা মিলে দু’সপ্তাহে মোট যে পরিমাণ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন তার চেয়ে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন এশিয়ায়। তিনি আরো বলেন, এই মুহূর্তে আমাদের প্রয়োজন আঞ্চলিক সমর্থনের জন্য বৈশ্বিক সহযোগিতা হিসেবে মেডিকেল সরঞ্জাম, রোগ প্রতিরোধ এবং জরুরি ভিত্তিতে টিকা পাওয়া। এ অঞ্চলে টিকাদান কার্যক্রম চালু হলেও রেড ক্রস বলছে, টিকা সঙ্কটের কারণে তা বিঘিœত হচ্ছে। রয়েছে নানা দ্বিধাদ্ব›দ্ব। অনেক এলাকায় টিকা পৌঁছাতে খরচের বিষয় আছে। আলেকজান্দার ম্যাথিউ বলেছেন, এই মহামারিকে নিয়ন্ত্রণে আনতে আমাদের প্রয়োজন বৃহত্তর বৈশ্বিক সহযোগিতা। যেমন জীবন রক্ষাকারী রিসোর্স, চিকিৎসা সরঞ্জাম, টিকা ও অর্থ। সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা মানুষদের সহায়তার জন্য এসব প্রয়োজন। যখন প্রতিজন মানুষ নিরাপদ হবেন, তখনই মাত্র আমরা নিরাপদ হবো।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
১২ মে ২০২১, বুধবার, ৮:৩২

সব চেয়ে আশার বাণী প্রত্যন্ত অঞ্চলে করোনার আক্রমণ কম। যেখানে সেবা পৌছানো কঠিন। রোগটি শহর ভিত্তিক যেখানে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান সহজ। কিন্তু মাত্রাতিরিক্ত আক্রান্ত হয়ে গেলে সীমাবদ্ধ সেবা কুলিয়ে উঠা সম্ভব নয়।

অন্যান্য খবর