× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২১ জুন ২০২১, সোমবার, ৯ জিলক্বদ ১৪৪২ হিঃ

জ্বলছে গাজা, ‘মসজিদ ধ্বংস করে দিয়েছে ইসরাইল’, নিহত বেড়ে ১৩২

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) মে ১৫, ২০২১, শনিবার, ৯:৫৩ পূর্বাহ্ন

জ্বলছে গাজা। ইসরাইলের মুহুর্মূহু বিমান ও সমুদ্র পথে হামলায় অগ্নিকুণ্ডের রূপ ধারণ করেছে ফিলিস্তিনি এই বিচ্ছিন্ন জনপদ। আজ শনিবার ভোরে নতুন করে আকাশপথে হামলা জোরালো করেছে ইসরাইল। এর জবাবে হামাস রকেট ছুড়েছে ইসরাইলের দিকে। ইসরাইলের হামলায় গাজায় একটি মসজিদ ধ্বংস হয়ে গেছে বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। সেনাবাহিনীর মুখপাত্র বলেছেন, তারা এই রিপোর্ট যাচাই করে দেখছেন। ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে যখন সহিংসতা বা যুদ্ধ ৫ম রাতে পড়েছে, তখনও মার্কিন ও আরব কূটনীতিকরা এর ইতি টানার আহ্বানের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রয়েছেন। গাজার সাধারণ জনগণকে দেখা গেছে এক কাপড়ে ঘর ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ের দিকে ছুটে যাচ্ছেন।
এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এতে বলা হয়, ভোর রাতে গাজার উত্তরাঞ্চলে তীব্র বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। ফিলিস্তিনি চিকিৎসকরা বলেছেন, এতে কমপক্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। স্থানীয় অধিবাসীরা বলছেন, ভূমধ্যসাগরে অবস্থানরত ইসরাইলি বিমান বাহিনীর বোট থেকে গোলা নিক্ষেপ করা হয়েছে। তবে তা গাজা ভূখণ্ডে আঘাত করতে ব্যর্থ হয়েছে। জবাবে গাজা থেকে ইসরাইলের দক্ষিণাঞ্চলে দুটি বড় শহরে রকেট হামলা করেছে হামাস। তারা এর দায়িত্ব স্বীকার করেছে। এ সময় ইসরাইলের ওই দুই শহরে সাইরেন বাজানো হয়।  
ওদিকে লড়াই বন্ধ হওয়ার কোনো লক্ষণই দেখা যাচ্ছে না। সমান তালে বাড়ছে মৃত্যু ও আহতের সংখ্যা। ইসরাইল দখলীকৃত পশ্চিমতীরে ১১ জন নিহত হয়েছেন বলে জানাচ্ছেন ফিলিস্তিনিরা। সেখানে বিক্ষোভকারী এবং ইসরাইলি নিরাপত্তা রক্ষাকারীদের মধ্যে লড়াই চলছে। সব মিলে সোমবার থেকে এখন পর্যন্ত ৩২টি শিশু, ২১ জন নারীসহ কমপক্ষে ১৩২ জন নিহত হয়েছেন গাজায়। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৯৫০ জন। হামাস বলেছে, গাজা সিটির বিচ শরণার্থী ক্যাম্পে বসবাসকারী আবু হাত্বাব পরিবারের একটি বাড়িতে বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। এতে সেখানে একজন নারী ও একটি শিশুসহ কমপক্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি ইসরাইলি সেনাবাহিনী। অন্যদিকে ইসরাইলে নিহত হয়েছে মোট আটজন।
গাজায় যখন রক্তগঙ্গা বইয়ে দেয়া হচ্ছে তখন মানবাধিকারের রক্ষক, নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রতিষ্ঠান বা সংগঠনগুলো ধীরে চলো নীতি গ্রহণ করেছে। রোববার এ ইস্যুতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে বৈঠক হওয়ার কথা। তবে তার আগে শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ইসরাইল ও ফিলিস্তিন বিষয়ক ডেপুটি অ্যাসিসট্যান্ট সেক্রেটারি হাদি আমর’কে পাঠানো হয়েছে এ অঞ্চলে। ইসরাইলে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস থেকে বলা হয়েছে, এই সফরের উদ্দেশ্য টেকসই একটি শান্ত অবস্থার দিকে অগ্রসর হতে কাজ করা।
শুক্রবার দিনভর হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। তারা বলেছে, এ সময় হামাসের বেশ কয়েক কিলোমিটার টানেল, রকেট উৎক্ষেপণ স্থাপনা এবং অস্ত্র তৈরির কারখানা ধ্বংস করে দিয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
nasir uddin
১৭ মে ২০২১, সোমবার, ১০:১৯

Caption says,"the Israelis destroyed mosques". This caption has no value as Muslims in Afghanistan, Iraq and elsewhere in the Muslim world, regularly target mosques for destruction including destroying inmates (Namajis). The Americans, during Iraq war, bombed grand mosque in Karbala killing hundreds inside. The Indian Hindus destroyed Babri Mosque Now, the Israelis are following the trail and the Muslim world less very few keeping their mouth shut. So, the caption carries no value indeed.

Anisur rahman
১৫ মে ২০২১, শনিবার, ৫:২৮

Anisur Rahman, Ottawa

Anisur rahman
১৫ মে ২০২১, শনিবার, ৫:২৪

Most of the western countries says Israel has right to self defense against rocket attacks by Palestinians militants. As human rights activist, I do agree everyone has right to live with dignity ,equality ,freedom and torture free society,whatever muslims, Christians or Jewish. Western countries again and again says mentioned Israeli self defense but where is Palestinians self defense against forced expulsions, unlawful killings, forced displacement, abusive detention? Who occupied the Palestinians land? Who created the situation? Every countries are fully aware the name of so called " Jewish ownership " is an official policy to displace Palestinians. A powerful nuclear nation against a poor nation that has rock's and old rocket's to depend themselves. A giant against an ant---- its inhuman, heinous and horrible. The world watching the match !!!

নূর মোহাম্মদ এরফান
১৫ মে ২০২১, শনিবার, ২:৩৭

মুসলমানদের চরম শত্রু ইহুদি বাদি ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করনের নামে জগত শত্রু আমেরিকার কু মন্ত্রণায় নিজেদের গোদী রক্ষার্থে যে সব আরব শাসকরা গোলমী চুক্তি করেছে, তাদের গোদী ও ইসরাইল রাষ্ট্রের চিরতরে ধ্বংস হোক নিপাত যাক। আ মি ন ইরব।

md nurul amin
১৫ মে ২০২১, শনিবার, ১২:৩৬

আল্লাহর সাহায্য ছাড়া ফিলিস্থিনিদের রক্ষা করার আর কেউ নেই। হে আল্লাহ তুমি ইদুদিবাদি দখলদার ইসরাইলি বাহিনীর হাত থেকে নিরপরাধ ফিলিস্থিনি মুসলমানদেরকে রক্ষা করো। আমিন।

Mohamed Ali Bhuiyan
১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ৯:৪৯

হামাসের উচিত হবে গোপনে ইসরাইল এর দালাল আরব আমিরাতে হামলা করা। এই কুলাঙ্গার মুসলিম নামধারী শাসকদের আগে শেষ করে দেওয়া উচিত।

Kazi
১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ৯:১৪

উভয় দেশ সমান সমান সামরিক অস্ত্রের অধিকারী হলে শান্তি সম্ভব। তখন আগ্রাসন বন্ধ হবে, যুদ্ধ বাধবে না। আমেরিকা চাইলে চেষ্টা করে দেখতে পারে ।

সোহেল
১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ৯:০২

মুসলিম আরব শাসকরা রাষ্ট্রক্ষমতা হারানোর ভয়ে মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছে। এরা আল্লাহকে ভয় না করে আমেরিকা ইসরায়েলের গোলামে পরিণত হয়েছে। এ দিকে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ক্ষমতা হারানোর ভয়ে নির্বাচন স্থগিত করেছে। শুধু হামাস দেশের জন্য লড়াই করে যাচ্ছে। স্যালুট হামাসকে কারণ এখন গোলার জবাব গুলতিতে নয় রকেট ও খেপণাস্ত্র দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ইনশাআল্লাহ বওজয় সন্নিকটে অথবা শহীদ।

অন্যান্য খবর