× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২১ জুন ২০২১, সোমবার, ৯ জিলক্বদ ১৪৪২ হিঃ

খুলনায় ঠাঁই নেই হাসপাতালে

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা থেকে
১১ জুন ২০২১, শুক্রবার

খুলনায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। করোনা রোগীদের জন্য নির্ধারিত হাসপাতালের পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে চিকিৎসকরা। রোগীদের চাপ বেশি থাকায় নতুন বেড খালি না হওয়া পর্যন্ত রোগী ভর্তি স্থগিত করেছে খুলনার করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ইতিমধ্যে ৩৮ হাজার অতিক্রম করেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ জনসহ এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৬৯৫ জনের। সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে খুলনা বিভাগের ১২৬ ইউনিয়নের ভোট স্থগিত করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ ছাড়া আরও ৩৭ ইউপি’র ভোট স্থগিত করা হয়েছে। সেইসঙ্গে স্থগিত করা হয়েছে ৯টি পৌরসভার ভোট।

খুলনার করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ফোকাল পার্সন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান,  গতকাল দুপুর পর্যন্ত ১০০ শয্যার এই করোনা হাসপাতালে রোগী ভর্তি হয়েছেন ১৩০ জন।
ভর্তি রোগীদের মধ্যে ৫৫ জন আছেন রেড জোনে, ২৯ জন ইয়োলো জোনে। আইসিইউতে ১২ জন এবং এইচডিইউতে ৩০ জন আছেন। নতুন ভর্তি হয়েছেন আরও ৫০ জন রোগী। তিনি জানান, রোগীদের চাপ বেশি থাকায় নতুন বেড খালি না হওয়া পর্যন্ত রোগী ভর্তি সাময়িক সময়ের জন্য স্থগিত করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে বেড খালি হলে আবারো রোগী ভর্তি করা হবে। তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে হাসপাতালটিতে আরও ১০০ শয্যা প্রস্তুত করা হচ্ছে।

খুলনা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. শেখ সাদিয়া মনোয়ারা ঊষা জানান, জেলা ও মহানগরীতে নতুন করে ১২২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ৪১২ জনের নমুনা পরীক্ষায় এ শনাক্ত হয়। খুলনায় মোট নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্তের হার ২৯ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনার রূপসা সেনের বাজারের আইচগাতী এলাকার শেখ আজগর আলী (৫২) নামে এক ব্যক্তি মৃত্যুবরণ করেছেন। এ নিয়ে খুলনায় মৃত্যু হয়েছে ১৯২ জনের।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জেলাভিত্তিক করোনা-সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, বিভাগে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যার দিক থেকে খুলনা জেলা শীর্ষে রয়েছে। এ পর্যন্ত খুলনায় শনাক্ত হয়েছে ১১ হাজার ১০১ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৯২ জন। বাগেরহাটে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৯৯১ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫৩ জন। যশোরে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭ হাজার ৮৯৯ জন। মারা গেছেন ৮৪ জন। নড়াইলে শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৯৬১ জন। মারা গেছেন ২৭ জন। মাগুরায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ২৯২ জন। মারা গেছেন ২৩ জন। ঝিনাইদহে শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ৩১ জন। মারা গেছেন ৫৭ জন। কুষ্টিয়ায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫ হাজার ৩৯৪ জন। মারা গেছেন ১২৪ জন। চুয়াডাঙ্গায় শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ১৫৪ জন। মারা গেছেন ৬৪ জন। মেহেরপুরে শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ১১০ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৩ জন।

এদিকে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে খুলনা বিভাগের ১২৬ ইউনিয়নের ভোট স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ ছাড়া আরও ৩৭ ইউপি’র ভোট স্থগিত করা হয়েছে। সেইসঙ্গে স্থগিত করা হয়েছে ৯টি পৌরসভার ভোটও। গতকাল বিকাল ৩টায় সংবাদ সম্মেলনে সিদ্ধান্ত জানায় নির্বাচন কমিশন।
এর আ?গে করোনার কারণে ভোটের তারিখ পুনর্বিবেচনায় নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
shiblik
১১ জুন ২০২১, শুক্রবার, ১০:০৮

বস্তিদেশে মানুষ যে এখনো বেঁচে আছে এটাই একটা আশ্চর্যের বিষয়। সাধারন পরিস্থিতিতেই সু চিকিৎসার অভাবে সামর্থ্যবান ব্যাক্তি চিকিৎসার জন্য ভারত, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর যায় ..... বাজেটে স্বাস্থ্য এবং শিক্ষা খাতে কত টাকা এবং বন্দুকের পিছনে কত টাকা বরাদ্দ আছে?

Kazi
১০ জুন ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৩:২০

তারপরও হয়ত মানুষ বেপরোয়া। যতক্ষণ নিজে আক্রান্ত হয় না ততক্ষণ মনে করে তার কিচ্ছু হবে না। মাস্ক লাগানোর দরকার নাই। এ মনোবৃত্তি শুধু অশিক্ষিত নয় শিক্ষিত রা পোষণ করে।

অন্যান্য খবর