× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৭ জুলাই ২০২১, মঙ্গলবার, ১৬ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ

রাশিয়ার প্রথম গোলটি যে কারণে ‘অফসাইড’ ছিল না

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
১৪ জুন ২০২১, সোমবার

রাশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের ১০ মিনিটেই স্কোরশিটে নাম লেখান রোমেলু লুকাকু। কিন্তু গোল করার সময়ে পরিষ্কার দেখা যায় অফসাইডে ছিলেন বেলজিয়ামের এই স্ট্রাইকার। তাহলে এটা গোল দেয়া হলো কেন? ফুটবলের আইন বলছে এটা নিয়মসিদ্ধ গোলই ছিল।
সেইন্ট পিটাসবার্গ স্টেডিয়ামে ম্যাচে লুকাকুর প্রথম গোলের সময় লাইন্সম্যান অফসাইডের পতাকা তোলেননি, ম্যাচের রেফারিও অফসাইডের বাঁশি বাজাননি। তবে লুকাকু বল রাশিয়ার জালে পাঠানোর পর ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সাহায্য নেয়া হয়েছিল। কিন্তু ভিএআরও অফসাইড না দিয়ে গোল বহাল রাখে।
দ্রিস মের্টেনসের একটি ক্রসের জন্য রাশিয়ার বক্সে অপেক্ষা করছিলেন লুকাকু। তার সামনেই ছিলেন রাশিয়ার ডিফেন্ডার আন্দ্রেই সেমেনভ।
তিনি বলটি বিপদমুক্ত করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। বল সেমেনভের পায়ে লেগে একটু দূরে গিযে পড়ে। দৌড়ে গিয়ে সেখান থেকে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ঠান্ডা মাথার শটে জালে পাঠান লুকাকু। টিভি রিপ্লেতে দেখা গেছে মের্টেনস যখন ক্রসটি বাড়ান, অফসাইড
পজিশনে ছিলেন ইন্টার মিলানের স্ট্রাইকার। তবে সেমেনভের ওই পায়ের ছোঁয়াটাই বদলে দিয়েছে পরিস্থিতি। নিয়ম অনুযায়ী যে দলের বিপক্ষে আক্রমণ হচ্ছে সেই দলের কোনো খেলোয়াড় যদি বলটি খেলেন (তা বল নিজের নিয়ন্ত্রণে নেয়ার জন্য বা বিপদমুক্ত করার জন্যই হোক), তাহলে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড় আর অফসাইড হবেন না! লুকাকুর গোলের ক্ষেত্রে ঠিক এটাই হয়েছে।
শনিবার রাশিয়ার বিপক্ষে বেলজিয়ামের ৩-০ ব্যবধানের জয়ে জোড়া গোল করেন লুকাকু।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর