× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৭ জুলাই ২০২১, মঙ্গলবার, ১৬ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ

ব্রাজিলের উড়ন্ত জয়ের ‘নায়ক’ নেইমার

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
১৫ জুন ২০২১, মঙ্গলবার

কোপা আমেরিকায় উড়ন্ত সূচনা পেলো ফেভারিট ব্রাজিল। গতকাল ব্রাসিলিয়ায় ভেনেজুয়েলাকে ৩-০ গোলে হারায় স্বাগতিকরা। ব্রাজিলের তিন গোলেই অবদান রেখে ম্যাচের ‘নায়ক’ নেইমার। আর ম্যাচ শেষে নেইমারকে নতুনভাবে আবিষ্কার করলেন ব্রাজিল দলের কোচ লিওনার্দো বাচ্চি তিতে। ম্যাচে নেইমার একটি গোল করার পাশাপাশি বাকি দুই গোলেও ভূমিকা রেখেছেন। এদিন ব্রাজিলের বাকি দুই গোল করেন মার্কিনহোস ও গাব্রিয়েল বারবোসা।
লাতিন আমেরিকার দুর্বলতম দলগুলোর একটি ভেনেজুয়েলা। তার ওপর করোনার আঘাতে আরও বেশি দুর্বল হয়েই দলটি মাঠে নেমেছিল নেইমারের উজ্জ্বল ব্রাজিলের সামনে। করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় মূল দলের ৯ জন খেলোয়াড়কে পাননি ভেনেজুয়েলার কোচ।
করোনাভাইরাসের থাবায় নাজুক ভেনেজুয়েলার প্রতি সমবেদনা ঝরলো ব্রাজিল অধিনায়ক কাসেমিরোর কণ্ঠে। রিয়াল মাদ্রিদ তারকা বলেন, ‘তিন পয়েন্ট পাওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। শুরুটা ভালো করা জরুরী। যদিও (করোনাভাইরাসের কারণে) আমাদের প্রতিপক্ষ ভেনেজুয়েলা খেলোয়াড়দের হারিয়েছে।’ প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি) ডিফেন্ডার মার্কিনহোস বলেন, ‘আমরা জানতাম ভেনেজুয়েলার বন্ধ দুয়ার পেরিয়ে আসতে হবে আমাদের এবং তারা আমাদের জন্য খেলাটা কঠিন করে তুলবে। কিন্তু সৃষ্টিকর্তাকে ধন্যবাদ, আমরা প্রথমার্ধে গোল করতে সক্ষম হই এবং এটা আমাদের সাহায্য করেছে।’ মার্কিনহোস বলেন, ‘গোল করা কতটা গুরুত্বপূর্ণ, আমরা সেটা জানি, বিশেষ করে এ ধরনের ম্যাচে। ম্যাচটা উন্মুক্ত করে দেয়ার জন্য এবং প্রতিপক্ষকে একটু আক্রমণ করে খেলতে বাধ্য করার জন্য এখানে প্রথম গোল খুব গুরুত্বপূর্ণ।’
ম্যাচের শুরু থেকেই ভেনেজুয়েলাকে চেপে ধরে ব্রাজিল। কিন্তু দুর্বল ফিনিশিংয়ের কারণে গোল পাচ্ছিলো না তিতের শিষ্যরা। ম্যাচে নেইমার শুধু গোল করেছেন বা করিয়েছেন সেটাই নয়; গোল মিসের মহড়াতেও নেইমার ছিলেন সবার চেয়ে এগিয়ে। ম্যাচের ২৩তম মিনিটেই নেইমারের কর্নার কিক থেকে ভেনেজুয়েলার ডিফেন্সের জটলার মধ্যে গোল পান মার্কিনহোস। মাঝমাঠে ফ্রেড ও কাসেমিরোর পাশাপাশি সৃষ্টিশীল মিডফিল্ডার হিসেবে লুকাস পাকেতাকে খেলানো হলেও হতাশ করেছেন লিওঁর এই তারকা। ৬৪ মিনিটে রাইটব্যাক দানিলোকে ডিবক্সের মধ্যে ফেলে দেন ভেনেজুয়েলার ডিফেন্ডার। সেখান থেকে পেনাল্টি পায় ব্রাজিল। সফল স্পটকিকে গোল আদায় করেন নেইমার।
ব্রাজিলের জার্সি গায়ে ১০৬ ম্যাচে নেইমারের গোলের সংখ্যা দাঁড়ালো ৬৭-তে। আর ১০ গোল করলে ব্রাজিলের সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় কিংবদন্তি পেলের পাশে বসে যাবেন পিএসজির এই ফরোয়ার্ড। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে নেইমারের অ্যাসিস্টও  ৪৭টি।
ম্যাচ শেষে ব্রাজিলের কোচ তিতে বলেন, ‘তার  (নেইমার) সৃষ্টিশীলতার সামর্থ্যের উন্নতি হয়েছে। ডান-বাম দুই পায়ের খেলায় উন্নতি হয়েছে তার। দিনকে দিন (প্রতিপক্ষের জন্য) অননুমেয় খেলোয়াড় হয়ে উঠছে সে।’
নেইমারের গোলের পরই রিচার্লিসনের বদলে গাব্রিয়েল বারবোসাকে মাঠে নামান ব্রাজিল কোচ তিতে। ৮৯ মিনিটে নেইমারের ক্রস বুক দিয়ে জালে ঠেলে ব্যবধান ৩-০ করেন বারবোসা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর