× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৭ জুলাই ২০২১, মঙ্গলবার, ১৬ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ

ডাবলসেও শিরোপা জিতে ইতিহাসে ক্রেইচিকোভা

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
১৬ জুন ২০২১, বুধবার

এক বছর আগেও সেরকম নাম ডাক ছিল না, র‌্যাঙ্কিংয়ে ছিলেন একশ’রও বাইরে। সেই বারবোরা ক্রেইচিকোভা এখন আলোচনার শীর্ষে। শনিবার ফ্রেঞ্চ ওপেনের মহিলাদের সিঙ্গেলসের ফাইনালে শিরোপা জিতেছেন চেক প্রজাতন্ত্রের টেনিস তারকা। এবার ডাবলসে স্বদেশি ক্যাটেরিনা সিনিয়াকোভাকে নিয়ে জিতলেন শিরোপা। রোলাঁ গারোয় ৬-৪, ৬-২ ব্যবধানে পোল্যান্ডের ইগা শিয়াওতেক, যুক্তরাষ্ট্রের বেথানি ম্যাটেক স্যান্ডসকে হারিয়েছেন তারা।
বছরের শুরুতেই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালেও উঠেছিল এই জুটি। সেখানে খেতাব হাতছাড়া হয়েছিল ক্রেইচিকোভা ও স্যান্ডসের। তবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে ক্রেইচিকোভা জিতে নিয়েছিলেন মিক্সড ডাবলসের শিরোপা। তাছাড়া ২০১৮ সালেও ফরাসি ওপেন ডাবলস খেতাব জিতেছিলেন ক্রেইচিকোভা।
রোলাঁ গারোয় ক্রেইচিকোভা-সিনিয়াকোভা জুটির দ্বিতীয় ডাবলস শিরোপা। এছাড়া ২০১৩ সালে জুনিয়র ডাবলসেও চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন এই চেক জুটি। সিঙ্গেলের পর ডাবলস জিতে রোলাঁ গারোর ইতিহাসে নাম লেখান ক্রেইচিকোভা। দীর্ঘ ২১ বছর পর ফ্রেঞ্চ ওপেনের একই আসরে মহিলাদের সিঙ্গেলস ও ডাবলসে শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলেন তিনি। এর আগে ২০০০ সালে ফ্রান্সের মারি পিয়ার্স এই কীর্তি অর্জন করেছিলেন। রোলাঁ গারোর ইতিহাসে সপ্তম নারী হিসেবে একই সঙ্গে জোড়া কীর্তির নজির গড়লেন ক্রেইচিকোভা। সদ্য শেষ হওয়া ফ্রেঞ্চ ওপেনে র‌্যাঙ্কিংয়ে ৩৪ নম্বর হিসেবে খেলতে নামেন ক্রেইচিকোভা। শনিবার মহিলাদের সিঙ্গেলসের ফাইনাল জেতার মাধ্যমে ১৭তম স্থানে উঠে আসেন। আর সোমবার ডাবলস জিতে মহিলাদের ডাবলস র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষস্থান দখল করলেন ২৫ বছরের এই টেনিস তারকা। এদিন প্রথম সেটে ৫-১ এ এগিয়ে ছিলেন ক্রেইচিকোভা ও স্যান্ডস জুটি। এই সেটে জয় আসে ৪৩ মিনিটের খেলায়। ৬-৪, ৬-২ ব্যবধানে খেতাব জয় নিশ্চিত হয় ১ ঘণ্টা ১৪ মিনিটের লড়াই শেষে। ম্যাচ জিতে উচ্ছ্বসিত ক্রেইচিকোভা বলেন, ‘গতকালের (সিঙ্গেল জয়) মতোই আজকেও অনেক অনুভূতি জড়িত এতে (ডাবলস জয়)। আমি ভালোভাবে ঘুমাতে পারিনি। খুব সকালেই ঘুম থেকে ওঠে পড়ি এবং খুব ক্লান্তি লাগছিল। যখন কোর্টে আসলাম, অনেক শান্ত অনুভব করি। গোটা ম্যাচে আমি আমার পার্টনারকে সাহায্য করার চেষ্টা করছিলাম।’ আনন্দের সুরে ক্রেইচিকোভা বলেন, ‘ইতিমধ্যেই বলেছি, এখন পর্যন্ত আমি কিছু পান করিনি। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে, সত্যিই এটা উদযাপনের সময়।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর