× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৯ জুলাই ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১৮ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ
আলাপন

আমরা পরীমনির সাথে আছি -অঞ্জনা

বিনোদন

মাজহারুল তামিম
১৬ জুন ২০২১, বুধবার

এক সময়ের জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী অঞ্জনা সুলতানা। দীর্ঘদিন ধরে অভিনয়ের বাইরে তিনি। বর্তমানে ব্যস্ত রয়েছেন রাজনীতি ও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে। তবে তিনি সবসময়ই চলচ্চিত্রের খোঁজ খবর রাখেন এবং মাঝেমধ্যে চলচ্চিত্রের আঁতুরঘর এফডিসিতেও তার দেখা মেলে। এদিকে সম্প্রতি নায়িকা পরীমনিকে ধর্ষণ-হত্যা চেষ্টার ঘটনা সম্পর্কে ভালোভাবেই অবগত এই অভিনেত্রীও। এ ঘটনায় আপনার প্রতিক্রিয়া কী? অঞ্জনা বলেন, পরী একজন মেয়ে মানুষ। তার ওপর এরকমভাবে টর্চার করা ঠিক হয়নি। এটা আমি মেনে নিতে পারছি না।
একজন নারীকে যদি ৪/৫ জন টর্চার করে তা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। যেভাবেই হোক যেরকম ভাবেই হোক। আশা করি এর সঠিক তদন্ত হবে এবং দোষীদের বিচার হবে। আমরা পরীর সাথে আছি। যেহেতু তিনি আমাদের শিল্পী। তবে আমাদের সবারই একটু সাবধান হওয়া উচিত। বুঝেশুনে এমন জায়গায় যাওয়া উচিত না। পরী হয়তো না বুঝে বোট ক্লাবে চলে গিয়েছে। তাকে সামনেও সতর্ক থকবে হবে। এবার ভিন্ন প্রসঙ্গে আসি। আপনি একটা সিনেমা করতে চেয়েছিলেন নিজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে। সেটার খবর কী? অঞ্জনা বলেন, এখন তো করানোকাল চলছে। তাই সব কাজই বন্ধ। সামনের বছর সিনেমাটির কাজ শুরু করবো ইনশাআল্লাহ। একটু একটু করে প্রস্তুতি নিচ্ছি। আপনি নাচের সঙ্গেও জড়িত। সেই ব্যস্ততা কেমন? উত্তরে অঞ্জনা বলেন, নাচের কোনো অনুষ্ঠান হচ্ছে না। এমনিতে তো নাচের অনেক অনুষ্ঠান নিয়ে ব্যস্ত থাকি। তবে এখন মিস করছি। আশা করি সব স্বাভাবিক হয়ে যাবে। তারপর নাচের অনুষ্ঠানও করবো। অঞ্জনা তার অভিনয় জীবন শুরু করেছিলেন ১৯৭৬ সালে। বাবুল চৌধুরী পরিচালিত ‘সেতু’ চলচ্চিত্র দিয়ে তিনি কাজ শুরু করলেও তার মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম চলচ্চিটি ছিলো ‘দস্যু বনহুর’। শামসুদ্দিন টগর পরিচালিত এ ছবিটি ১৯৭৬ সালের ১২ই সেপ্টেম্বর মুক্তি পায়। এই সিনেমায় অঞ্জনার নায়ক ছিলেন সোহেল রানা। এরপর তিন শতাধিকেরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
ওমর ফারুক
১৬ জুন ২০২১, বুধবার, ১০:২৯

যে যেই চরিত্রের সে সেই চরিত্রের সমর্থক। এটাই বাস্তবতা।

Md. Wahed Ali
১৬ জুন ২০২১, বুধবার, ১১:৫৯

Bortoman juge valo lokder shathe kew thakte chay na shobai oboidho oshlilotake support kore nijeder shartho hasiler chesta kore.

Adv. N. I. Bhuiyan
১৫ জুন ২০২১, মঙ্গলবার, ৯:৩২

বাংলাদেশের সৎ সহনশীল সহযোগিতাপূর্ণ ভালো মানুষ গুলোকে এরকম নষ্ট চরিত্রহীন লম্পট মদখোর বানানোর ক্ষেত্রে আপনাদের অবদান কম নয় আপনারাই এইরকম ধর্ষণের সমাজ সৃষ্টি করেছেন শরীর দেখিয়ে দুটো পয়সা পাওয়ার লোভে নারীকে ভোগ্যপণ্য হিসেবে সমাজে প্রদর্শন করেছেন আপনাদের পরবর্তী রা এই কাজই করে যাচ্ছে আল্লাহ আপনাদের হেদায়েত করুক

অন্যান্য খবর