× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৮ জুলাই ২০২১, বুধবার, ১৭ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ

কটিয়াদীতে ধর্ষণচেষ্টার মামলা বাদী বলছে গণধর্ষণ

বাংলারজমিন

কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি
২০ জুন ২০২১, রবিবার

 কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার বৈরাগীরচর গ্রামের এক কিশোরীকে (১৫) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে একই গ্রামের দুই যুবকের বিরুদ্ধে। ভিকটিমের পিতা আসাদ মিয়া বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার রাতে কটিয়াদী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ মামলাটিকে ধর্ষণের চেষ্টা উল্লেখ করে রেকর্ড করেন। তবে বাদীর দাবি তার মেয়েকে গণধর্ষণ করা হয়েছে।  জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যায় ভিকটিম পার্শ্ববর্তী তার চাচার বাড়ি থেকে দুধ আনতে গেলে একই গ্রামের ফরিদ মুন্সির পুত্র কাসেম (২২) ও মজলু মিয়ার পুত্র সোহেল (২৩) তাকে জোরপূর্বক পাটক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করে। তার চিৎকারে লোকজন এগিয়ে এলে যুবকরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ভিকটিমের পিতা থানায় ধর্ষণের বিচার চাইলে পুলিশ ধর্ষণের চেষ্টা উল্লেখ করে একটি অভিযোগ লিখে এনে স্বাক্ষর দিতে বলে। মামলার বাদী অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়েকে ধর্ষণ করা হয়েছে। একটি প্রভাবশালী মহল ঘটনাকে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টায় লিপ্ত আছে।
আমি ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি। স্থানীয় মেম্বার পল্লব মিয়া জানান, আপসের জন্য চেষ্টা করে দুই পক্ষকেই একত্রিত করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু ভিকটিমের পিতা আপসে রাজি না হয়ে থানায় মামলা দায়ের করে। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, কিশোরগঞ্জ জেলা শাখার সভানেত্রী এডভোকেট মায়া ভৌমিক বলেন, যেহেতু ধর্ষিতার পিতা অভিযোগ করে বলছেন তার মেয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছে। কাজেই সঠিক তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত। ধর্ষণ বা ধর্ষণের চেষ্টা মামলা আপসযোগ্য নয়। আমি বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করার জন্য পুলিশ সুপারের কাছে অনুরোধ করছি। এ ব্যাপারে কটিয়াদী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম বলেন, মেয়েটির দেয়া এজাহার অনুযায়ী মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। এখন তদন্ত হবে। তদন্তে ধর্ষণের আলামত পেলে মামলাটি ধর্ষণ মামলা হিসাবে বিচারের আওতায় আসবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর