× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৪ জুলাই ২০২১, শনিবার, ১৩ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ

সেনবাগে সাব-রেজিস্ট্রারের ঘুষ দাবির অভিযোগ, ১৩৭ দলিল লিখকের প্রতিবাদ

বাংলারজমিন

সেনবাগ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি
২০ জুন ২০২১, রবিবার

নোয়াখালীর সেনবাগে নাবালক ও নাবালিকার দলিল সম্পাদনে সাব-রেজিস্ট্রার তানিয়া তাহেরের বিরুদ্ধে ঘুষ দাবি, অসদাচরণ, দলিল লিখকদের সনদপত্র বাতিলের হুমকি প্রদানসহ নানা অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ভুক্তভোগী দলিল লিখক মো. আলী হোসেন ১৬ই জুন মহাপরিদর্শক (নিবন্ধন), আইনমন্ত্রী, সচিব, স্থানীয় এমপি, দুদক, গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন দপ্তরের ১৯ জনকে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অপরদিকে, দলিল লিখক কাজী হুমায়ুন কবির ১৪ই জুন একটি দলিল সম্পাদনের জন্য উপস্থাপন করলে সাব-রেজিস্ট্রার তার খাসকামরায় ডেকে ২০ হাজার টাকা দাবি করেন বলে অভিযোগ করা হয়। টাকা না দেয়ায় দলিলের দাতা ঢাকা থেকে আসা ফাতেমা বেগম ও লিখক কাজী হুমায়ুন কবিরকে শাস্তিস্বরূপ এজলাস কক্ষে এক ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রাখেন। কাগজপত্র এজলাসের নিচে ছুড়ে ফেলে দেন। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে কাজী মো. হুমায়ুন কবির (সনদপত্র নং ৩৫৭৪) নিবন্ধন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শকসহ ১০টি দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
দলিল লিখক ও অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের মার্চ মাসে কবিরহাট উপজেলার সাব-রেজিস্ট্রার তানিয়া তাহের সেনবাগে সপ্তাহে দু’দিন অফিস করেন। গত দু’সপ্তাহ ধরে ডেপুটেশনে থাকা সাব-রেজিস্ট্রারের সঙ্গে দলিল  লিখকদের উত্তেজনা চলে আসছে।
অভিযোগকারী দলিল লিখক আলী হোসেন জানান, গত ১৭ই জানুয়ারি রবিউল ইসলাম রিফাত (নাবালক) ও লাতিফা আক্তার মিমি (নাবালিকা)-এর পক্ষে অভিভাবক নিযুক্ত হয়ে মাতা শাহিদা আক্তার দাত্রী, ইস্রাফিল ভূঁইয়া গ্রহীতা, ৩টি দলিল সাব-রেজিস্ট্রার বরাবরে রেজিস্ট্রির জন্য দাখিল করেন। দু’টি দলিল রেজিস্ট্রি হলেও তৃতীয় দলিলটির সময় সাব-রেজিস্ট্রার তানিয়া তাহের বলেন, বণ্টননামা, হেবার ঘোষণা, দানের ঘোষণা, নাদাবি পত্র, অছিয়তনামা, উইল এবং নাবালক-নাবালিকার দলিল রেজিস্ট্রি করতে পূর্বে কথা বলে নিতে হয়। এরপর তৃতীয় দলিলটি রেজিস্ট্রির জন্য ১৫ হাজার টাকা দাবি করেন। লিখক টাকা দিতে অস্বীকার করেন। এ সময় সাব-রেজিস্ট্রার দলিল লিখককে ৫ গুণ ক্ষতিপূরণ কেন লিখলেন বলে ওই পৃষ্ঠাটি প্রকাশ্যে ছিঁড়ে ফেলেন।
সেনবাগ দলিল লিখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আইনুল হক বাহাদুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সাব-রেজিস্ট্রারের অসৌজন্যমূলক আচরণ ও নানা অনিয়মের ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার দলিল লিখক সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটি জরুরি মিটিং করে প্রতিবাদ জানান। আজ সকাল ১০টায় সমিতির ১৩৭ জন দলিল লিখক সাধারণ সভার মাধ্যমে কর্মবিরতি ও কলম বিরতি পালনসহ নানা কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয়া হবে। এ ব্যাপারে সাব-রেজিস্ট্রার তানিয়া তাহের দু’সপ্তাহ ধরে অফিসে অচলাবস্থার সত্যতা নিশ্চিত করে মুঠোফোনে জানান, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা এবং অসদাচরণ জন্য দুই লিখকের বিরুদ্ধে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর