× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৮ জুলাই ২০২১, বুধবার, ১৭ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ

রামেক হাসপাতালে ১৩ জনের মৃত্যু গ্রামে ছড়াচ্ছে করোনা

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী থেকে
২৩ জুন ২০২১, বুধবার

রাজশাহীতে করোনা সংক্রমণ প্রথমদিকে মহানগর ও সীমান্তবর্তী গোদাগাড়ীতে বেশি থাকলেও তা এখন গ্রাম পর্যায়ে ছড়িয়ে পড়েছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে নতুন ভর্তি হওয়া রোগীদের পরিসংখ্যান এমন ইঙ্গিত দিচ্ছে। বর্তমানে প্রায় ৬০ শতাংশের বেশি গ্রামের রোগী রামেক হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসা নিচ্ছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে আরও ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী বলেন, মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত এ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছেন ৫৬ জন। যাদের মধ্যে ৩৪ জন রোগী গ্রামের। যা ৬০ দশমিক ৭২ শতাংশ। এর আগের দিন সোমবার হাসপাতালে ৬১ জন কোভিড রোগী ভর্তি হয়।
যার মধ্যে গ্রামের ৩৬ জন। যা ৫৯ দশমিক ০২ শতাংশ। এর আগের দিন রোববার এই হার ৫০ শতাংশ ছিল। এদিন ভর্তি হওয়া ৫৪ জন রোগীর ২৭ জন ছিল গ্রামের। শামীম ইয়াজদানী বলেন, ‘গ্রামের রোগীদের মধ্যে মৃত্যুর হারও বেশি। বর্তমানে গ্রামের পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে উঠেছে। সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে না পারায় থামানো যাচ্ছে না সংক্রমণ। তাই এখন রোগীর সংখ্যা প্রতিদিনই রেকর্ড ভাঙছে। এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে আরও ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন শামীম ইয়াজদানী। তিনি বলেন, ‘তাদের মধ্যে রাজশাহীর ১২ জন ও নাটোরের একজন রয়েছেন। তাদের ছয়জন মারা গেছেন আইসিইউতে। নয়জনের বয়স ৬১ বছরের ওপরে। অন্যদের মধ্যে ৫১ থেকে ৬০ বছরের একজন এবং ৩১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে তিনজন রয়েছেন। এ নিয়ে চলতি মাসে এ হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে ২২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মারা গেছেন ৪ঠা জুন, ১৬ জন। সবচেয়ে কম মারা গেছেন ১২ই জুন, চারজন।’
শামীম ইয়াজদানী বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৫৬ জন। তাদের ৩৭ জন রাজশাহীর। একই সময় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৬১ জন। গতকাল সকাল ৬টা পর্যন্ত ৩০৯ বেডের বিপরীতে চিকিৎসাধীন ছিলেন ৩৯৩ জন। তাদের মধ্যে রাজশাহীর ২৫৪ জন, চাঁপাই নবাবগঞ্জের ৬১ জন, নাটোরের ৩৩ জন, নওগাঁর ৩০ জন রয়েছেন। আইসিইউতে আছেন ১৯ জন। গতকাল সকাল ৬টা পর্যন্ত ৩০৯ বেডের বিপরীতে চিকিৎসাধীন ছিলেন ৩৯৩ জন। তাদের মধ্যে রাজশাহীর ২৫৪ জন, চাঁপাই নবাবগঞ্জের ৬১ জন, নাটোরের ৩৩ জন, নওগাঁর ৩০ জন রয়েছেন। আইসিইউতে আছেন ১৯ জন।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর