× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ৫ আগস্ট ২০২১, বৃহস্পতিবার , ২১ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ

হাবিব-আতিকের উপস্থিতিতে ইসিতে আপিলের শুনানি

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে
২৩ জুন ২০২১, বুধবার

নির্বাচন কমিশনে হাবিব-আতিকের উপস্থিতিতে আপিলের শুনানি হয়েছে। অভিযোগ দায়ের করেছিলেন সিলেট-৩ আসনের জাতীয় পার্টির প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিক। তিনি অভিযোগ করে বলেছেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব বৃটেন ও বাংলাদেশের দ্বৈত নাগরিক। সংবিধান অনুযায়ী তার প্রার্থিতা বৈধ হতে পারে না। প্রথমে তিনি সিলেটের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে এ অভিযোগ করলেও তার আবেদনে সাড়া দেননি সিলেটের নির্বাচন কর্মকর্তা। এ কারণে আতিকের পক্ষে নির্বাচন কমিশনে আপিল করা হয়। গতকাল সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত আপিল শুনানিতে অংশ নেন উভয় পক্ষের আইনজীবীরা। এ সময় আওয়ামী লীগ প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিক দু’জনই নির্বাচন কমিশনে উপস্থিত ছিলেন।
নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সহকারী সচিব আবু ইব্রাহিম গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন সিলেট-৩ আসনের দুই প্রার্থীর উপস্থিতিতে আপিলের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। আজ দুপুরের মধ্যে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ ব্যাপারে সিদ্বান্ত দেয়ার কথা রয়েছে। আপিল শুনানিকালে উভয়পক্ষের আইনজীবীরাও উপস্থিত ছিলেন। এদিকে, জাতীয় পার্টির প্রার্থী আতিকের আইনজীবীরা উপস্থাপন করেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হাবিবের বৃটিশ নাগরিকত্ব প্রমাণের কয়েকটি কাগজ। যে তথ্যগুলো নির্বাচন কমিশনের হলফনামায় উল্লেখ করনেনি হাবিব। আতিকের আইনজীবীরা জানিয়েছেন হাবিব নিজেকে বাংলাদেশি নাগরিক হিসেবে হলফনামায় উল্লেখ করলেও একজন বৃটিশ নাগরিক তিনি। নাগরিকত্ব ত্যাগের মাধ্যমে বাংলাদেশ নির্বাচনের সুযোগ থাকলেও ভিন্ন দেশের কোনো নাগরিকের নির্বাচনে সরাসরি অংশ গ্রহণের সুযোগ নেই বাংলাদেশে। বিধিবদ্ধ আইনের সেই জায়গাতে প্রশ্ন তুলেছেন আতিকের আইনজীবীরা। জাপার প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিক জানিয়েছেন, ‘একজন বিদেশি নাগরিকের নির্বাচনে অংশ গ্রহণের অধিকার নেই। আমাদের কাছে সংগৃহিত তথ্যের ভিত্তিতে আমরা নিশ্চিত হাবিব একজন বৃটিশ নাগরিক। তিনি সাংবিধানিক নিয়ম অনুযায়ী, ৬ মাস পূর্বে ত্যাগ করেননি সিটিজেনশিপ। করলেও সেই তথ্য উপস্থাপন করেননি প্রার্থীতার হলফনামায়। সে কারণে নিয়মের ব্যতয় ঘটিয়ে, প্রার্থী হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।’ নির্বাচন কমিশন এ ব্যাপারে আজ তাদের সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে জানান আতিক। আওয়ামী লীগ প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের ঘনিষ্টজনেরা জানিয়েছেন, হাবিবুর রহমান হাবিব দীর্ঘ প্রায় ৩ বছর পূর্বে সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে বৃটিশ নাগরিকত্ব ত্যাগ করে নির্বাচনী প্রস্তুতি গ্রহণ করেছিলেন। সে কারণে তার প্রার্থীতা নিয়ে নাগরিকত্ব প্রশ্নের আপিল দিনশেষে টিকবে না। তিনি নির্বাচনের জন্য দীর্ঘদিন ধরে মাঠে কাজ করছেন বলে জানান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর