× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার , ১৪ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০ সফর ১৪৪৩ হিঃ

মৃত মানুষের দাঁত থেকে গয়না তৈরী করছেন অস্ট্রেলিয়ার তরুণী

রকমারি

সেবন্তী ভট্টাচার্য্য
১২ জুলাই ২০২১, সোমবার
সর্বশেষ আপডেট: ৫:০২ অপরাহ্ন

প্রিয়জনের মৃত্যুতে যাঁরা শোকস্তব্ধ তাঁদের দুঃখ কিছুটা লাঘব করতে এগিয়ে এসেছেন অস্ট্রেলিয়ার একজন জুয়েলার বা গয়না প্রস্তুতকারক।  মৃত মানুষের দাঁত থেকে গলার হার এবং আংটি তৈরি করে তিনি রীতিমত সাড়া ফেলে দিয়েছেন। গ্রেভ মেটালাম জুয়েলারির মালিক বছর ২৯-এর  জ্যাকি উইলিয়ামস মৃত মানুষের দেহাবশেষ থেকে তৈরী করেছেন নানা রকমের হস্তশিল্প। শুধু দাঁত নয়, মৃত মানুষের চুল এবং ছাই ব্যবহার করে তৈরী করে ফেলেছেন নেকলেস -ও। মিরর -কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জ্যাকি বলেছেন, 'আমি আমার ক্লায়েন্টের অনুরোধে যে কোনও ধাতব জুয়েলারিতে মৃত মানুষের দাঁত ব্যবহার করতে পারি।  আমি এই কাজটি করে আনন্দ পাই, কারণ আমি মনে করি এর মাধ্যমে যাঁরা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন তাঁদের কিছুটা হলেও অভাব পূর্ণ করতে আমি সাহায্য করি।'

কয়েক বছর আগে যখন তিনি তার প্রিয় বন্ধুকে হারিয়েছিলেন তখন থেকেই ঠিক করেন প্রিয়জনকে হারানোর দুঃখ মোকাবেলা করতে তিনি মানুষকে সাহায্য করবেন, তখন থেকেই এই জুয়েলারি বানানোর আগ্রহ তাঁর মধ্যে জন্মায়। জ্যাকি বলেছেন, তাঁর কাছে বিভিন্ন সময়ে বেশ কিছু অদ্ভুত অনুরোধও এসেছে। যেমন একজন তাঁকে আইইউডি ব্যবহার একটি গয়না তৈরী করে দিতে বলেছেন তবে সেটি প্লাস্টিকের হওয়ায় তিনি তা তৈরী করে দিতে পারেননি।

আরেকজন ক্লায়েন্ট তাঁকে একটি বুলেট দিয়ে গয়না বানাতে বলেছিলেন। সেই বুলেটটি ব্যবহার করে ওই ক্লায়েন্টের ঠাকুরদা আত্মঘাতী হয়েছিলেন।
শুধু মৃত মানুষই নয় ,বাড়ির আদরের পোষ্যটি মারা গেলেও তার লোম বা ছাই দিয়ে তিনি গয়না বানিয়ে দিতে পারেন বলে জানিয়েছেন জ্যাকি। জ্যাকি ২০১৭ সালে মেলবোর্ন পলিটেকনিক কলেজ থেকে গয়না এবং অবজেক্ট ডিজাইন নিয়ে ডিপ্লোমা করেছেন। স্নাতক হওয়ার পরে যখন চাকরির আশায় হণ্যে হয়ে ঘুরছেন তখন নিজের ব্যবসা শুরু করার সিদ্ধান্ত নেন। এক একটি গয়না তৈরী করতে তার ৬-৮ সপ্তাহ মত সময় লাগে। এগুলোর কোনোটির দাম ১৯ হাজার ৫০০ টাকা। কোনোটি আবার সাড়ে ৫ লাখেরও বেশি। গয়নাগুলি ক্রেতাদের অনুরোধের ভিত্তিতে ডিজাইন করা হয়। এগুলিতে  রুপো , সোনা এবং প্ল্যাটিনামের মতো মূল্যবান ধাতু ব্যবহার করা হয়।  কখনো আবার  পোখরাজ এবং হীরের মতো মূল্যবান পাথরও থাকতে পারে। জ্যাকি জানান তাঁর তৈরী করা সবচেয়ে মূল্যবান গয়নাটি ছিল একটি বিয়ের আংটি।

১৮ ক্যারেট  রোজ গোল্ড ওয়েডিং রিংটি তিনি বানিয়েছিলেন বরের দাঁত দিয়ে, সেটি পোখরাজ এবং গার্নেট দিয়ে ডিজাইন করা ছিল।  দাম ছিল ৪ লক্ষ ১৮ হাজার টাকা। গয়না বানাতে গিয়ে নেটিজেনদের কাছ থেকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া পেয়েছেন জ্যাকি।  কেউ কেউ তার কাজকে পছন্দ করেছেন, আবার দাঁত এবং হাড়ের কাজ দেখে বিরক্ত হয়েছেন । তবে বেশিরভাগ গ্রাহকরা জানিয়েছেন তাঁরা এই গয়নাগুলি রোজ পরেন। জ্যাকি জানান চিরাচরিত ধ্যান ধারণা বদলে তিনি এমন কিছু নিষিদ্ধ জিনিস দিয়ে গয়না বানান যা আমাদের হারিয়ে যাওয়া মানুষগুলির সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের একটা মাধ্যম  তৈরী করে দেয়।   সেই স্মৃতি আঁকড়েই বেঁচে থাকেন অনেকে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
নেছার আহমেদ
১২ জুলাই ২০২১, সোমবার, ১২:১৯

" বিকৃত মস্তিস্কের রুচি " ছাড়া অন্য কোন বিশেষণ এখানে বিশেষায়িত হবার নয়। অতয়েব ধিক জানাই এসব বিকৃত রুচির পক্ষের শক্তিদের !!

অন্যান্য খবর