× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার , ৬ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১২ সফর ১৪৪৩ হিঃ

ত্রিশালের কালো মানিকের দাম ৩০ লাখ, ১৫ লাখে টাইগার

দেশ বিদেশ

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
১৮ জুলাই ২০২১, রবিবার

এখন গরুর খামারিদের ব্যস্ততা শুধুই কোরবানি ঈদকে ঘিরে। তবে এবার করোনার কারণে হাটে গিয়ে গরু কেনা হয়তো হয়ে উঠবে না। তবুও থেমে নেই পশু বেচা-কেনা। প্রতিবছর কোরবানির ঈদের আগে ওজন এবং দামে আলোচনায় উঠে আসে নানা বাহারি নামের গরু। এবার সেই তালিকায় ঠাঁই পেয়েছে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের কালো মানিক ও পৌর শহরের কালো টাইগার নামে দুইটি ষাঁড়। এর মধ্যে কালো মানিকের দাম হাঁকা হচ্ছে ৩০ লাখ টাকা। চারবছর ধরে ফ্রিজিয়ান ষাঁড়টি লালন-পালন করে আসছেন ত্রিশাল উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের জাকির হোসেন সুমন। গত বছর কোরবানির ঈদের আগে ষাঁড়টির নাম দিয়েছিলেন ‘কালো মানিক’।
ত্রিশালসহ শহরেও নামটি এখন বেশ পরিচিত। এবার ঈদের আকর্ষণীয় এ ষাঁড় দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন নানা বয়সের মানুষ। জাকির হোসেন সুমন জানান, ফ্রিজিয়ান জাতের ষাঁড়টির উচ্চতা ৬ ফুট, আর লম্বা ১০ ফুটেরও বেশি। ওজন এক হাজার ৫০০ কেজি অর্থাৎ ৩৭ মণ হবে বলে দাবি সুমনের। ৩০ লাখ টাকা দাম পেলেই তিনি গরুটি বিক্রি করবেন বলে জানান। অন্যদিকে, ফ্রিজিয়ান জাতের কালো টাইগারকে গত চার বছর ধরে লালন পালন করে আসছেন ত্রিশাল উপজেলার পৌর ৬ নম্বর ওয়ার্ড নওধার নদীরপাড় এলাকার নজরুল ইসলাম। আসন্ন কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে আকর্ষণীয় এ ষাঁড়টিকে দেখতে প্রতিদিনই নজরুলের বাড়িতে ভিড় জমাচ্ছেন উৎসুক জনতা। ষাঁড়টি ১৫ লাখ টাকায় বিক্রির প্রত্যাশা করছেন তিনি। কালো টাইগার ছাড়াও তার খামারে আরও ১৫টি গরু রয়েছে। সবগুলো গরু ঈদ উপলক্ষে বিক্রির জন্য তৈরি করা হয়েছে।
স্থানীয় পশু চিকিৎসক হামিদ জানান, কালো টাইগারকে আমি নিয়মিত চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছি। প্রাকৃতিক খাবার খাইয়ে ষাঁড়টিকে লালন-পালন করা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর