× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ৫ আগস্ট ২০২১, বৃহস্পতিবার , ২১ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ
পেগাসাস কাণ্ড

বিরোধী রাজনীতিকদের টার্গেট করায় বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ, অ্যাপলের দরপতন, স্লোডেনের সতর্কতা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(২ সপ্তাহ আগে) জুলাই ২০, ২০২১, মঙ্গলবার, ১১:৫১ পূর্বাহ্ন

পেগাসাস প্রজেক্ট। নাড়িয়ে দিয়েছে বিশ্বকে। বিশেষ করে বিশ্ব রাজনৈতিক অঙ্গনে সোমবার তুমুল এক আলোড়ন দেখা দেয়। এর কারণ, ইসরাইলের এনএসও গ্রুপের আবিস্কার করা পেগাসাস নামের হ্যাকিং প্রযুক্তি কিনে ‘কর্তৃত্ববাদী’ সরকারগুলো বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবহার করেছে। এসব তথ্য সোমবার প্রকাশ হওয়ার পর সারা দুনিয়ায় ঝড় বয়ে যেতে থাকে। তুমুল উত্তেজনা দেখা দেয় ভারতে। বিশেষ করে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর ফোনে আড়ি পাতার খবর প্রকাশ হওয়ার পর উত্তেজনা সেখানে তীব্র আকার ধারণ করেছে। এ খবর দিয়ে অনলাইন গার্ডিয়ান লিখেছে, উদ্বেগ চারদিকে।
বিরোধী রাজনৈতিক নেতাদের বিরুদ্ধে ব্যবহারের জন্য ফোন হ্যাকিং সফটওয়্যার কিনেছে বিভিন্ন দেশ। এতে রাজনৈতিক অঙ্গনে ক্ষোভ ঝরে পড়ছে। এমন খবর প্রকাশ হওয়ার পর অনলাইন অ্যামাজন নিশ্চিত করেছে যে, তারা এরই মধ্যে ইসরাইলের এই সার্ভিলেন্স কোম্পানির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে। ব্যক্তিগত গোপনীয়তা এবং হ্যান্ডসেটের নিরাপত্তার বিষয়ে উদ্বেগ বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান অ্যাপলের বাজার দরে পতন হয়েছে।

ইসরাইলের এনএসও গ্রুপ দাবি করেছে, বিভিন্ন সরকারের কাছে তারা পেগাসাস বিক্রি করেছে সতর্কতার সঙ্গে। বলা হয়েছে, তা ব্যবহার করা হবে সন্ত্রাসী ও মারাত্মক অপরাধীদের শনাক্ত করতে। কিন্তু পেগাসাস প্রজেক্ট যা বলছে, তা ভিন্ন কথা। এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে বিভিন্ন দেশে সরকার বা তার এজেন্টরা রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ফোন হ্যাকিংয়ে ব্যবহার করছে। এ থেকে বাদ যাননি রাষ্ট্রপ্রধান, প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রীপরিষদ সদস্য, কূটনীতিক, সাংবাদিক, রাজনীতিক, অধিকারকর্মী।

এরই মধ্যে জানা গেছে মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট আঁন্দ্রে ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাডর যখন বিরোধী দলের রাজনীতিক ছিলেন তখন তার ঘনিষ্ঠ কমপক্ষে ৫০ জনকে টার্গেট করা হয়েছে। এর মধ্যে আছেন তিনি নিজে, তার স্ত্রী, সন্তান, সহযোগী, চিকিৎসক।

ফাঁস হওয়া ডকুমেন্টে দেখা গেছে ভারতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তার ফোন নম্বর কমপক্ষে ফাঁস হওয়া ডকুমেন্টে এসেছে দু’বার। তবে তার নম্বর হ্যাক করে কি সব তথ্য ফাঁস করা হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। এ নিয়ে চরম উদ্বেগ, ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন রাহুল গান্ধী। উল্লেখ্য, ভারতে পেগাসাস প্রযুুক্তি কিনেছে সরকার। ফলে রাহুল গান্ধীসহ অন্য যাদের ফোনে আড়িপাতা হয়েছে তা কে করেছে, তা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে জনগণের মনে।

রোয়ান্ডার জেলবন্দি অধিকারকর্মী পল রুসেসাবাগিনার মার্কিন কন্যা ক্যারিন ক্যানিম্বা এই স্পাইওয়্যার আক্রমণের শিকার হয়েছেন বহুবার। তাকে কেন্দ্র করে রচনা করা হয়েছে ছবি ‘হোটেল রোয়ান্ডা’। ক্যানিম্বার মোবাইল ফোনের ফরেনসিক পরীক্ষায় এসব তথ্য বেরিয়ে এসেছে। তবে এই প্রযুক্তি ব্যবহারের কথা অস্বীকার করেছে রোয়ান্ডা।

এ অবস্থায় হুইসেলব্লোয়ার হিসেবে পরিচিত এডওয়ার্ড স্লোডেন বলেছেন, তিনি আশঙ্কা করেন, এই পেগাসাস সফটওয়্যার খুব বেশি শক্তিশালী। এই সফটওয়্যার এবং এর মতো অন্য স্পাইওয়্যার আন্তর্জাতিকভাবে বিক্রি বন্ধ করে দেয়া উচিত বলে তিনি মনে করেন। স্লোডেন বলেন, যদি তারা একটি আইফোনকে হ্যাক করার কোনো উপায় পেয়ে যায়, তাহলে তারা সব আইফোনকে হ্যাক করতে পারবে। তিনি বলেন, এ জন্য স্পাইওয়্যারকে পারমাণবিক অস্ত্রের মতো বিবেচনা করা উচিত, যেখানে প্রযুক্তির বাণিজ্য হতে হবে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রিত।

গার্ডিয়ান লিখেছে, পেগাসাস প্রজেক্টের খবর প্রকাশ হওয়ার পর অ্যাপলের শেয়ারের দাম শতকরা ২.৪ ভাগ পড়ে গেছে। আশঙ্কা দেখা দিয়েছে, এনএসওর পেগাসাস সফটওয়্যার অ্যাপলের সর্বশেষ সংস্করণের আইফোনে খুব সহজেই প্রবেশ করতে পারে এবং এর নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিতে পারে মাত্র একটি ক্লিকের মাধ্যমে। এ ছাড়া এই সফটওয়্যার খুব সহজেই অন্য অ্যানড্রয়েডে গোপনে প্রবেশ করে এর ভিতরকার সব তথ্য নিয়ে নিতে পারে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর