× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ৫ আগস্ট ২০২১, বৃহস্পতিবার , ২১ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, করোনার বিরুদ্ধে আমরা জিতবোই : প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার
(২ সপ্তাহ আগে) জুলাই ২০, ২০২১, মঙ্গলবার, ৩:৩৮ অপরাহ্ন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ এক ভিডিও বার্তায় দেশবাসীসহ প্রবাসী বাংলাদেশীদের পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। ভিডিও বার্তাটি বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে সম্প্রচারিত হয়। তিনি বলেন, আমি ত্যাগের মহিমায় সমুজ্জ্বল পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানাই সকলকে। প্রবাসি ভাই বোনদের প্রতিও রইল আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পবিত্র ঈদুল আযহার প্রাক্কালে দেশবাসীকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়লাভের দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে আমরা অদৃশ্য শত্রু করোনা মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই করে যাচ্ছি। এই লড়াইয়ে আমাদেরকে জিততেই হবে এবং ইনশাল্লাহ আমরা জিতবোই। শেখ হাসিনা বলেন, গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে আমরা কভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াই করে যাচ্ছি। আর এর মধ্যে আমরা আমাদের অনেক আপনজনকে হারিয়েছি। আজকে তাদের স্মরণ করছি।
তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। তবে, এই লড়াইয়ে আমাদেরকে জিততেই হবে এবং আমরা জিতবো ইনশাল্লাহ। শেখ হাসিনা দেশবাসীর উদ্দেশে আরো বলেন, আসুন কুরবানীর ত্যাগের মহিমায় উজ্জ্বীবিত হয়ে আমরা দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করি।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। সকলে ভাল থাকুন, সুস্থ্য থাকুন, নিরাপদ থাকুন। ঈদ মোবারক।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
নওশের
২১ জুলাই ২০২১, বুধবার, ৬:২৮

ইনশাআল্লাহ

Kazi
২০ জুলাই ২০২১, মঙ্গলবার, ৫:৪০

দুই ডোজ নেওয়ার পর ও মাস্ক ছাড়া বাহির হই না । আর বাংলাদেশে মাস্ক পরেন না । মনে করেন আমার কিছুই হবে না । এত বেপরোয়া হলে খেসারত দিতেই হবে ।

Md. Abbas Uddin
২০ জুলাই ২০২১, মঙ্গলবার, ৪:১৮

মাননীয়া প্রধানমন্ত্রী, আপনার প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই বলতে চাই যে, করনা নিয়ন্ত্রণে আপনার আন্তরিকতা থাকা সত্ত্বেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অযোগ্যতা বা ষড়যন্ত্রের কারনেই হোক করনা নিয়ন্ত্রণে আসছে না। করনা নিয়ন্ত্রণে সামনে স্পষ্ট উপায়সমূহ থাকলেও সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ সেই সমাধাধানের পথে না যেয়ে উলটো পথে যাচ্ছেন যাহা রহস্যজনক। এইভাবে করনাকে দীর্থস্থায়ী করে বারে বারে লকডাউন দেয়া হচ্ছে। যার ফলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন বন্ধ থাকাতে শিক্ষার্থীদের জীবন আজ ধ্বংসের মুখে, অনেকে ঘরে আবদ্ধ থাকাতে মানসিক প্রতিবন্ধী হয়ে যাচ্ছে, অভিজ্ঞ ডাক্তেরদের চেম্বার বন্ধ থাকাতে বিভিন্ন জটিল রোগের রোগীরা চিকিতসা নিতে পারছেন না, বেকার সমস্যা বেড়ে যাচ্ছে সর্বপরী দেশ আর্থিকভাবে দূর্বল হচ্ছে। ঘনবসতিপূর্ন বাংলাদেশের আর্থসামাজিক বাস্তবতায় ২/১ টি কাজ করলেই ইনশাআল্লাহ করনা নিয়ন্ত্রনে আসার কথা। প্রথমতঃ শতভাগ মানুষকে যেকোন মূল্যে নিয়মিত মাস্ক পরার (সঠিক নিয়মে) আওতায় আনতে হবে। দ্বিতীয়তঃ জনপ্রতিনিধি, মসজিদের ইমাম, আলেম-ওলামা সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনকে সম্পৃক্ত করে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে এবং নিয়মিত ব্যাপক মাইকিং করতে হবে এবং অলি-গলি, পাড়া-মহল্লা ও হাট-বাজারে কঠোর নজরদারী থাকতে হবে। এই ২টি বিষয়ের উপর দেশের চৌকস স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞগণ(যেমনঃ বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক সাইদুর রহমান, ডঃ আবু জামিল ফয়সাল (স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উপদেষ্টা), অধ্যাপক ডঃ নজরুল ইসলাম সহ অন্যান্যরা) বিশেষভাবে গুরুত্ব দিয়ে আসছেন। এই দুইটি পয়েন্টের বাস্তবায়নের উপরই বাংলাদেশের করনা নিয়ন্ত্রণ আটকে আছে। সরকার এই ২টি বিষয়ের উপর কেন নজর দিচ্ছেন না তাহা রহস্যজনক। সরকার যদি জীবন ও জীবিকার ভারসাম্য একই সাথে রক্ষা করতে চান তবে এই দুইটি পয়েন্টের বাস্তবায়ন ছাড়া আর কোন বিকল্প নেই।

অন্যান্য খবর