× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার , ১৪ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০ সফর ১৪৪৩ হিঃ

ছেলের অকাল মৃত্যু মেনে নিতে পারেননি মা

বাংলারজমিন

অনলাইন ডেস্ক
২৩ জুলাই ২০২১, শুক্রবার

মাদারীপুরের কালকিনিতে কুকুরের কামড়ে নয়ন পাল (৩৪) নামে এক ফার্মেসি কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে তিনি ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।এদিকে নয়ন পালের অকাল মৃত্যুর খবরে তার মা মেঘনা পাল (৬০) বিষপান করেন এবং পরবর্তীতে আজ শুক্রবার (২৩ জুলাই) তিনিও মারা যান।
 এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,নয়ন পাল পৌর এলাকার দক্ষিণ রাজদী গ্রামের গৌতম পালের ছেলে। তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে হাওলাদার ফার্মেসির কর্মচারী ছিলেন। এদিকে আদরের বড় ছেলের অকাল মৃত্যু সইতে না পেরে বৃহস্পতিবার দুপুরে নয়ন পালের বৃদ্ধ মা বিষপান করেন এবং আজ শুক্রবার সকালে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ৫ই জুলাই সকালে নয়ন পাল নিজ ঘরের সামনে একটি কুকুর দেখে তাড়াতে যায়। এতে কুকুরটি ক্ষিপ্ত হয়ে নয়নকে ৫-৬ টি কামড় দিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে তার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে তাকে বাড়িতে নিয়ে আসেন পরিবারের লোকজন।
পরে বুধবার সকালে নয়ন পাল পুনরায় অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢাকা মহাখালীর একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একদিন পর বৃহস্পতিবার তার মৃত্যু হয়।
এদিকে, সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম বড় ছেলে নয়ন পালের মৃত্যুর শোক সইতে না পেরে তার বৃদ্ধ মা মেঘনা পাল (৬০) বিষপান করেন। বিষয়টি টের পেয়ে পরিবারের অন্য সদস্যরা মেঘনা পালকে প্রথমে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। কিন্তু সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানেই আজ শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকালে তিনি মারা যান। নিহতদের প্রতিবেশীরা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ছেলে নয়নের মৃত্যুর শোক সইতে না পেরে তার মা মেঘনা পাল আত্মহত্যা করেছেন। পরপর দুই দিন পরিবারের কাছের দুজনকে হারিয়ে শোকে পাথর হয়ে গেছে গৌতম পালের পরিবার। এ ঘটনায় নিহতদের পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর