× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার , ৭ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ সফর ১৪৪৩ হিঃ

অলিম্পিকে যেভাবে ঈদ কাটালেন মুসলিম অ্যাথলেটরা

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
২৪ জুলাই ২০২১, শনিবার

অলিম্পিক ভিলেজে করোনা হানা দেয়ায় নিয়ম খুব কঠোর করা হয়েছে। এর মধ্যে পবিত্র ঈদুল আজহার আনন্দ ভাগ করে নেয়াও কঠিন। সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, টোকিওতে মুসলিম অ্যাথলেটরা কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যেই সীমিতভাবে ঈদ উদযাপন করেছেন।
দিনের পর দিন কঠোর অনুশীলন করে টোকিও অলিম্পিকে এসেছেন অ্যাথলেটরা। করোনা মহামারির মধ্যে অ্যাথলেটরা খুব স্বাভাবিকভাবেই ঈদ উদযাপনের খুব সুযোগ পাননি। শুভেচ্ছা যা বিনিময় করার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ও অনলাইনে খুদে বার্তা পাঠানোর মাধ্যমে করতে হয়েছে।
করোনাভাইরাস নিয়ে বিধিনিষেধের কারণে অলিম্পিক ভিলেজের সঙ্গে এবার বলতে গেলে টোকিও শহরেরই কোনো সংযোগ নেই। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মাস্ক পরাটা সেখানে বাধ্যতামূলক।
তাই অলিম্পিক ভিলেজে মুসলিম অ্যাথলেটরা ঈদের নামাজ আদায়ের সময় মুখে মাস্ক পরে ছিলেন। জর্ডান অলিম্পিক কমিটি এ নিয়ে একটি টুইট করে।
সেখানে ভিডিওতে অ্যাথলেট এবং অন্যদের মাস্ক পরে নামাজ আদায় করতে দেখা যায়। খেলাধুলার কাপড় ও জুতা পরেই নামাজ আদায় করেন তারা। জর্ডান অলিম্পিক কমিটির টুইটে বলা হয়, ‘অ্যাথলেটদের ভিলেজে ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছেন ইসলামিক দেশগুলোর প্রতিনিধিরা।’
নামাজে সাধারণত জায়নামাজ ব্যবহারের রীতি থাকলেও অ্যাথলেটরা পাথরের মেঝেতেই নামাজ আদায় করেন। কেউ কেউ সৌদি ব্র্যান্ডের ট্র্যাকস্যুট পরেছিলেন। মরক্কো ও জর্ডানের প্রতিনিধিরা মিষ্টান্ন বিতরণ করেন।
বাইরে কঠোর বিধিনিষেধ থাকলেও অনলাইনে ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে ভুলে যাননি মুসলিম অ্যাথলেটরা। তুরস্কের নারী ভলিবল দল (দেশে ‘সুলতানস অব দ্য নেট’ নামে খ্যাত) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘টোকিও থেকে সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা।’
অলিম্পিক শরণার্থী দলের হয়ে টোকিও সংস্করণে অংশ নিয়েছেন ইরান, ইরাক, সিরিয়া ও আফগানিস্তানের অ্যাথলেটরা। তাদের ঈদ উদযাপন করা নিয়ে অলিম্পিক সংহতি কমিটির পরিচালক জেমস ম্যাকলিওড বলেন, ‘মুসলিম অ্যাথলেটরা ঈদ উদযাপন করতে পারায় আমরা আনন্দিত। বিধিনিষেধের কারণে হয়তো উৎসব করা সম্ভব হচ্ছে না, তবে অ্যাথলেটরা ব্যক্তিগত উদ্যোগে ঈদ উদযাপন করেন।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর