× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার , ১৩ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯ সফর ১৪৪৩ হিঃ

এবার টাইগারদের চোখ অস্ট্রেলিয়ার দিকে

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
২৬ জুলাই ২০২১, সোমবার

মাঠে নামার আগে সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় টি-টোয়েন্টিকে ‘ফাইনাল’ বলে আখ্যা দেন দুই দলের অধিনায়ক। আর গতকাল ম্যাচ শেষে ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে জোড়া ট্রফি উঠলো সৌম্য সরকারের হাতে। হারারেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৯৩ রান তাড়া করে পাঁচ উইকেটে জয় পায় বাংলাদেশ। ব্যাটে-বলে চৌকস নৈপুণ্য দিয়ে ম্যাচসেরার পুরস্কার জেতেন সৌম্য সরকার। আর তিন ম্যাচের দুটির সেরা খেলোয়াড় সৌম্যর হাতেই ওঠে সিরিজ সেরার পুরস্কার। গতকাল ইনিংসের শুরুতে কিছুটা মন্থর ব্যাটিং করতে দেখা যায় সৌম্যকে। তবে পড়ে চেনা রূপে ফেরেন তিনি। এদিন ৪৯ বলে ৬৮ রান করেন এ টাইগার ওপেনার।
ইনিংসে হাঁকান ৯টি চার ও একটি ছক্কা। আর ম্যাচ শেষে ২৮ বছর বয়সী সৌম্য সরকার বলেন, ‘শুরুটা একটু আস্তে হলেও আমার চিন্তা ছিল পাওয়ার প্লে’র এক ওভারে বড় রান পাওয়া। আমি রিয়াদ ভাই যখন ব্যাট করছিলাম আমরা চেয়েছি প্রতি ওভারে অন্নত একটি বাউন্ডারি হাঁকিয়ে জুটিটা ধরে রাখবো।’ গতকাল ওভারে জোড়া আঘাত হেনে বল হাতেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন দলের এই স্লো মিডিয়াম পেসার। বাংলাদেশের জন্য বিপজ্জনক হয়ে ওঠা জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যান রেজিস চাকাভাকে (২২ বলে ৪৮ রান) সাজঘরের পথ দেখান সৌম্য। একই ওভারে তিনি বোল্ড করেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক সিকান্দার রাজাকে।
সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ১৫২ রান তাড়া করে আট উইকেটের জয় পায় বাংলাদেশ। সেদিন সৌম্যর ব্যাট থেকে আসে কাঁটায় কাঁটায় ৫০ রান। অপর ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম শেখ ম্যাচের সর্বোচ্চ ৬৮ রান করলেও অলরাউন্ড নৈপুণ্যের জন্য ম্যাচ সেরার পুরস্কার পান সৌম্য। ওই ম্যাচে বল হাতে এক উইকেট শিকার ও ফিল্ডিংয়ে দারুণ একটি ক্যাচ নেন তিনি। জিম্বাবুয়ে-বাংলাদেশ সিরিজে দ্বিতীয় সর্বাধিক ১২৬ রান সংগ্রহ সৌম্য সরকারের। কেবল জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যান ওয়েসলি মাধেভেরে পেয়েছেন সিরিজে তার চেয়ে বেশি রান (১৫৫)। সিরিজে বল হাতে সর্বাধিক ৬ উইকেট শিকার তরুণ টাইগার পেসার শরিফুল ইসলামের। বাংলাদেশ দলের পরবর্তী মিশন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ। জিম্বাবুয়ে থেকে দেশে ফিরেই পুরো দল সরাসরি হোটেলে ঢুকে যাবে জৈব সুরক্ষা বলয়ে। পরে সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলবে পাঁচ ম্যাচে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। গতকাল ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেন, ‘ছেলেরা তাদের সামর্থ্য দেখিয়েছে। শামীম ও সাকিবের ইনিংসও গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ব্যাটে-বলে সৌম্য অসাধারণ খেলেছে। এখন আমাদের মনোযোগ দিতে হবে পরবর্তী সিরিজের দিকে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভালো কিছু দেখাতে চাই।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর