× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার , ৪ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ সফর ১৪৪৩ হিঃ

পেগাসাস ব্যক্তিগত ইস্যু নয়, রাষ্ট্রদ্রোহিতা- রাহুল গান্ধী

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) জুলাই ২৯, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১১:২৬ পূর্বাহ্ন

পেগাসাস ইস্যুতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে সমালোচনার বাণ ছুড়েছেন কংগ্রেস নেতা ও পার্লামেন্টে বিরোধী দলের চার্জে থাকা নেতা রাহুল গান্ধী। বুধবার তিনি কেন্দ্রীয় সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, পেগাসাস কোনো ব্যক্তিগত ইস্যু নয়। এটা রাষ্ট্রদ্রোহিতা। তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে এ ইস্যুতে সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা দাবি করেন। তার দাবি, কেন্দ্রীয় সরকারকে পরিষ্কার করে বলতে হবে পেগাসাস প্রযুুক্তি ব্যবহার করে ভারতীয় নাগরিকদের বিরুদ্ধে আড়িপাতা হয়েছে কিনা। পেগাসাস ইস্যুতে সরকারকে কিভাবে ঘায়েল করা যাবে তা নিয়ে বিরোধী ১৪ দলের এক বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে এসব কথা বলেন রাহুল গান্ধী। বুধবারের এ বৈঠকে কংগ্রেস ছাড়াও যোগ দিয়েছিল শিবসেনা, সিপিআই(এম), সিপিআই, রাষ্ট্রীয় জনতা দল, এএপি, ডিএমকে, এনসিপি, ন্যাশনাল কনফারেন্স ও সমাজবাদী পার্টি। এ ছাড়া মুসলিম লীগ, রেভ্যুলুশনারি সোশ্যালিস্ট পার্টি, কেরালা কংগ্রেস এবং বিদুথালাই চিরুথাইগাল কাটচির মতো কিছু ছোট দলও এতে অংশ নিয়েছিল।
তবে পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় থাকা তৃণমূল কংগ্রেস এতে যোগ দেয়নি। উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গ সরকার এরই মধ্যে পেগাসাস ইস্যুতে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। এ দলের সিনিয়র এমপি ডেরেক ও’ব্রায়েন বলেছেন, বিরোধী দল শতভাগ ঐক্যবদ্ধ আছে। তার দল আগেই কংগ্রেসকে জানিয়েছিল যে, বুধবারের ওই বৈঠকে উপস্থিত হতে পারবে না তার দল। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

এতে বলা হয়, নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে রাহুল গান্ধী বলেছেন, ভারতীয় নাগরিকদের বিরুদ্ধে পেগাসাস স্পাইওয়্যার ব্যবহার করা জাতীয়তাবিরোধী কর্মকা-। তিনি বলেন, পেগাসাস ইস্যু একটি জাতীয়তাবাদী ইস্যু। আমাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ। কারণ, এই প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে। আমার কাছে এটা কোনো ব্যক্তিগত বিষয় নয়। এটা রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকা-। এই অস্ত্র (প্রযুক্তি) ব্যবহার করা হয়েছে ভারতের বিরুদ্ধে। এটা এমন একটি প্রযুক্তি, যা ব্যবহার হওয়া উচিত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে। কিন্তু মোদিজি এবং অমিত শাহকে আমাদের বলতে হবে, কেন এই প্রযুক্তি গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হয়েছে? নরেন্দ্র মোদি এবং অমিত শাহ এই প্রযুক্তি ব্যবহার করেছেন ভারত ও তার প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে। এর মধ্য দিয়ে তারা ভারতীয় গণতন্ত্রের মর্মমূলে আঘাত করেছেন।

রাহুল গান্ধী একের পর এক সমালোচনার বাণ ছুড়তে থাকেন। তিনি বলেন, সরকার চায় না পার্লামেন্টে পেগাসাস ইস্যুতে আলোচনা হোক। সরকার আমাদেরকে বলে দিয়েছে যে, পার্লামেন্টে পেগাসাস ইস্যুতে কোনো আলোচনা হবে না। আমি দেশের যুবসমাজের কাছে প্রশ্ন রাখতে চাই- নরেন্দ্র মোদি তোমাদের ফোনে একটি অস্ত্র ঢুকিয়ে দিয়েছেন। এই অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে আমার বিরুদ্ধে, অন্য নেতাদের বিরুদ্ধে এবং নেতাকর্মী ও অধিকারকর্মীদের বিরুদ্ধে। কিন্তু কেন এই ইস্যু পার্লামেন্টে আলোচনা করা যাবে না?

বিরোধী দল পার্লামেন্টের কর্মকা- পরিচালনায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে এমন অভিযোগেরও জবাব দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। তিনি বলেছেন, সরকার বলেছে আমরা পার্লামেন্টের কার্যক্রম পরিচালনায় বাধা সৃষ্টি করছি। কিন্তু আমি বলতে চাই, আমরা আমাদের দায়িত্ব পূর্ণাঙ্গভাবে পালন করতে চাই।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর