× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার , ৭ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ সফর ১৪৪৩ হিঃ

করোনা পরিস্থিতি অবনতির পূর্বাভাস দিলেন ড. ফাউচি

শেষের পাতা

মানবজমিন ডেস্ক
৩ আগস্ট ২০২১, মঙ্গলবার

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অবনতির পূর্বাভাস দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ও প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রধান মেডিকেল উপদেষ্টা ড. অ্যান্থনি ফাউচি। দেশে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার কারণে, যুক্তরাষ্ট্র যন্ত্রণার সম্মুখীন বলে রোববার মন্তব্য করেছেন তিনি। এই করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির জন্য তিনি লাখ লাখ মানুষকে দায়ী করেছেন। এসব মানুষ এখনো টিকা নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে যাচ্ছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ভয়েস অব আমেরিকা। এতে আরও বলা হয়েছে, কয়েক সপ্তাহ ধরে যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। অনেক মানুষ টিকা নেননি। তাদের অনেকে এখন বলছেন, টিকার বিষয়ে বিবেচনা করছেন।
কিন্তু লাখ লাখ মানুষ এক বা একাধিক কারণ উল্লেখ করে বলেছেন, তাদের এই টিকা নেয়ার কোনো ইচ্ছাই নেই। সেক্ষেত্রে স্বাস্থ্য বিষয়ক কর্মকর্তারা তাদেরকে যতই অনুরোধ করুন না কেন, তাদের কিছু এসে যায় না।
ড. অ্যান্থনি ফাউচি প্রায়দিনই মার্কিনিদের টিকা নিতে উৎসাহিত করছেন। তিনি বলেছেন, মারাত্মকভাবে অসুস্থ হওয়া এবং মৃত্যুর হাত থেকে নিজেকে রক্ষা করতে হবে আপনাকে। যেসব মানুষ টিকা নেননি, তারা এই ভাইরাসের বিস্তারে সাহায্য করছেন।
যুক্তরাষ্ট্রে এরই মধ্যে দিনে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ৭০ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ৬ সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৬০ হাজার। এই সংখ্যা তার চেয়েও বেশি। ফেব্রুয়ারির পর এত বেশি মানুষকে সংক্রমিত হতে দেখা যায়নি। কিছু কিছু রোগ বিশেষজ্ঞ আরও ভয়ের কথা বলছেন। তারা বলছেন, ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট অতি মাত্রায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। ফলে যুক্তরাষ্ট্রে আগস্টে এই ভাইরাসে এক লাখ ৪০ হাজার থেকে ৩ লাখ পর্যন্ত মানুষ নতুন করে সংক্রমিত হতে পারেন। এরই মধ্যে বিজ্ঞানীরা বলেছেন, টিকা নিয়েছেন এমন ব্যক্তিরাও এই ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে দিতে পারেন। এর প্রেক্ষিতে গত সপ্তাহে নতুন নির্দেশনা জারি করেছে মার্কিন সরকারের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন বা সিডিসি। তাদের নতুন নির্দেশনায় বলা হয়েছে, যারা এরই মধ্যে টিকা নিয়েছেন, তাদেরকেও আবার আবদ্ধ ঘরে মুখে মাস্ক পরতে হবে।
এই নির্দেশনা নিয়ে কিছু রিপাবলিকান গভর্নর উপহাস করেছেন। এসব গভর্নর তাদের রাজ্যে সম্প্রতি বিধিনিষেধ শিথিল করেছেন। তারা মাস্ক পরা বা বাধ্যতামূলকভাবে টিকা নেয়ার বিরোধিতা করেছেন। সামনের মাসগুলোতে অফিসে ফেরার আগে কমপক্ষে ২০ লাখ ফেডারেল কর্মীকে টিকা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। অথবা ওইসব ব্যক্তিকে প্রমাণ দিতে হবে যে, তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নন। কিন্তু দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য অ্যারিজোনার রিপাবলিকান দলের গভর্নর ডগ ডুসি করোনাভাইরাস নিয়ে সিডিসির নির্দেশনা প্রত্যাখ্যান করেছেন। তিনি বলেছেন, মাস্ক পরা অথবা টিকা নেয়া, ভ্যাকসিন পাসপোর্ট বাধ্যতামূলক করবে না অ্যারিজোনা। কে টিকা নেয়নি তার ওপর ভিত্তি করে স্কুলগুলোতে বৈষম্য করা হবে না। আমরা এসব বিষয়ে আইন পাস করেনি। তা পরিবর্তন করা হবে না। করোনা মহামারি মোকাবিলায় বাইডেন প্রশাসন যে কার্যকরভাবে অক্ষম এটা তার আরেকটি উদাহরণ বলে সিডিসির নির্দেশনাকে উপেক্ষা করেন ডগ ডুসি।
রিপাবলিকান কর্মকর্তাদের এমন অভিযোগের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছেন ড. অ্যান্থনি ফাউচি। যারা টিকা নেয়ার দাবিকে প্রত্যাখ্যান করেছেন, তারা যেসব অভিযোগ উত্থাপন করেছেন- তিনি তাও প্রত্যাখ্যান করেছেন। ফাউচি বলেন, আমরা মারাত্মক স্বাস্থ্যগত চ্যালেঞ্জের মুখে।  

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর