× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার , ৭ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ সফর ১৪৪৩ হিঃ

যুক্তরাষ্ট্রে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) আগস্ট ৩, ২০২১, মঙ্গলবার, ১:০৯ অপরাহ্ন

যুক্তরাষ্ট্রে আবার বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। বিশেষ করে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলে সংক্রমণ বাড়াচ্ছে। এ অবস্থায় রাজনৈতিক নেতাদের ওপর ক্রমশ চাপ বাড়ছে। সোমবার ফ্লোরিডা ও লুইজিয়ানা রাজ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যাক করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। একজন চিকিৎসক আরও ভয়ের কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন, এখনও সামনে ‘সবচেয়ে অন্ধকার সময়’ অপেক্ষা করছে। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এতে বলা হয়, রোববার ফ্লোরিডায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে কমপক্ষে ১০ হাজার রোগীকে।
ফলে এ সংখ্যা এ রাজ্যের আগের রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছে। অন্যদিকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টার মধ্যে লুইজিয়ানাতে আগের রেকর্ড ভঙ্গ হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এ অবস্থায় ইন্ডোরে বা ঘরের ভিতরে আবার অধিবাসীদের মাস্ক পরার জন্য নির্দেশ দিতে পারেন গভর্নর জন বেল এডওয়ার্ডস। তিনি একজন ডেমোক্রেট।

লুইজিয়ানাতে ব্যাটন রৌজের আওয়ার লেডি অব দ্য লেক রিজিওনাল মেডিকেল সেন্টারের প্রধান মেডিকেল অফিসার ড. ক্যাথেরিন ও’নিল বলেছেন, এই মহামারিতে এগুলো হলো অন্ধকার সময়। গভর্নর জন বেল এডওয়ার্ডকে সঙ্গে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। বলেন, আমরা এখন আর পর্যাপ্ত পরিমাণ রোগীকে দেখাশোনা করতে পারছি না। তিনি লুইজিয়ানাবাসীকে টিকা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। সতর্ক করেছেন এই বলে যে, হাসপাতালগুলো রোগীতে উপচে পড়ছে। অনেক নার্স ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে ওই রাজ্যে জনগণের সেবা দেয়ার জন্য ৬ হাজার জনবলের সঙ্কট আছে।

আরকানসাস রাজ্যের হাসপাতালে ভর্তি করানোর হার বৃদ্ধি পেয়েছে। অল্প সময়ের মধ্যে সেখানেও রেকর্ড ভঙ্গ হতে পারে। অন্যদিকে ক্যালিফোনিয়াতে আটটি সান ফ্রান্সিসকো বে এরিয়ার কাউন্টির রাজনৈতিক নেতারা ইনডোরে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরার নির্দেশ দিয়েছেন।

নিউ ইয়র্ক এবং নিউ জার্জির গভর্নররা বলেছেন, পরিবহন, জেলখানা, হাসপাতাল এবং নার্সিং সেবায় লিপ্ত ব্যক্তিদেরকে টিকা নিতে হবে। নিয়মিত পরীক্ষার ফল জানাতে হবে। ডেনভারের মেয়র মাইকেল হ্যানকক বলেছেন, তার শহরে কমপক্ষে ১১ হাজার চাকরিজীবী আছেন। তাদেরকে বাধ্যতামূলকভাবে টিকা নিতে হবে। নিউ ইয়র্কের মেয়র অ্যানড্রিউ কুমো বার, রেস্তোরাঁ এবং অন্য প্রাইভেট ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাস্টমারদের প্রবেশের ক্ষেত্রে নিশ্চিত হতে বলেছেন যে, তারা টিকা নিয়েছেন কিনা। যদি আক্রান্তের সংখ্যা কমে না আসে তাহলে নার্সিং গৃহকর্মী, শিক্ষক এবং স্বাস্থ্যসেবায় যারা আছেন, তাদের জন্য টিকা নেয়া বাধ্যতামূলক করা হবে।

নিউ জার্সির গভর্নর ফিল মারফি অধিবাসী ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর আরো কঠোরতা দিতে পারেন। যেহেতু দেশজুড়ে অতি সংক্রমণশীল ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট উচ্চ মাত্রায় ছড়িয়ে পড়ছে তাই এসব উদ্যোগের মাধ্যমে জনগণকে টিকা নিতে উৎসাহিত করা হচ্ছে। তবে বিপরীত অবস্থান নিয়েছেন ফ্লোরিডার গভর্নর, রিপাবলিকান রন ডি’সান্তিস। গত সপ্তাহে তিনি একটি নির্বাহী আদেশ দিয়েছেন। তাতে স্কুলে মাস্ক পরায় নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর