× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, রবিবার , ৩ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ সফর ১৪৪৩ হিঃ

রোহিঙ্গাসহ শরণার্থী ইস্যুতে নির্দিষ্ট কোনো সুপারিশ করেনি বিশ্বব্যাংক

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) আগস্ট ৩, ২০২১, মঙ্গলবার, ১:৪৬ অপরাহ্ন

বাংলাদেশসহ কোনো দেশের শরণার্থীর বিষয়ে নির্দিষ্ট কোনো সুপারিশ করেনি বিশ্বব্যাংক। তবে তারা জানিয়েছে, আশ্রয় গ্রহণকারী রোহিঙ্গা শরণার্থীরা যতদিন নিরাপদে এবং স্বেচ্ছায় মিয়ানমারে ফিরে না যাবেন, ততদিন বাস্তুচ্যুত এসব মানুষের চাহিদা মেটাতে বাংলাদেশকে সাহায্য করবে বিশ্বব্যাংক। সংস্থাটির ওয়েবসাইটে প্রশ্নোত্তর আকারে আজ ৩রা আগস্ট প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এ কথা বলা হয়েছে। এখানে ওই বিবৃতির অনুবাদ তুলে ধরা হলো-

১. বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর প্রত্যাবর্তনের বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের অবস্থান কি?
রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী যতক্ষণ পর্যন্ত নিরাপদে এবং স্বেচ্ছায় মিয়ানমারে ফিরে না যাবেন, ততক্ষণ তাদের চাহিদা মেটানোর জন্য বাংলাদেশকে সাহায্য করে যাবে বিশ্বব্যাংক। এই জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় দেয়ার ফলে যে ক্ষতিকর প্রভাব পড়ছে স্থানীয় সম্প্রদায়ের ওপর, তা সর্বনি¤œ পর্যায়ে রাখতে বাংলাদেশকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে বিশ্বব্যাংক।

২.বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ঢল নামার পর যেসব চ্যালেঞ্জ সৃষ্টি হয়েছে, তা মোকাবিলার জন্য বাংলাদেশকে কি পরিমাণ সমর্থন দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বিশ্বব্যাংক?
কক্সবাজারের স্থানীয় সম্প্রদায় ও বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের জন্য স্বাস্থ্য, অনানুষ্ঠানিক শিক্ষা, নিরাপত্তা বেষ্টনি, পানি, পয়ঃনিষ্কাশন, মৌলিক অবকাঠামো- জলবায়ু স্থিতিস্থাপক সড়ক, রাস্তায় সৌরবাতি এবং দুর্যোগ মোকাবিলার প্রস্তুতির জন্য বাংলাদেশকে ৫৯ কোটি ডলার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বিশ্বব্যাংক। কক্সবাজারের চ্যালেঞ্জ এবং উন্নয়নে অগ্রাধিকার সম্পর্কে অনুধাবনের জন্য গবেষণা এবং বিশ্লেষণ করা হচ্ছে।

৩.এই সহায়তা কোনো ঋণ নাকি দান?
পুরো ৫৯ কোটি ডলারই হলো আর্থিক অনুদান।
এটা কোনো ঋণ নয়।

৪.শরণার্থী নীতি পর্যালোচনার উদ্দেশ্য কি?
শরণার্থী এবং আশ্রয় দানকারী সম্প্রদায়ের মধ্যে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন কতটুকু কার্যকর এবং তা কি প্রভাব ফেলছে, তা নির্ণয়ের জন্যই রিফিউজি পলিসি রিভিউয়ের উদ্দেশ্য। এই পর্যালোচনা করা হয়েছে বিশ্বব্যাংকের ১৪টি সদস্য দেশের সবটাতে, যেসব দেশ বর্তমানে বাস্তুচ্যুত মানুষদের আশ্রয় দিয়েছে।

৫.শরণার্থী নীতি কিভাবে পর্যালোচনা করা হয়েছে?
রিফিউজি পলিসি রিভিউ ফ্রেমওয়ার্কের অধীনে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাই কমিশনার এই পর্যালোচনা করেছেন। বিদ্যমান নীতি, অনুশীলন এবং কর্মসূচির ভিত্তিতে এসব তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে।

৬. রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশকে কি সুনির্দিষ্ট কোনো সুপারিশ করেছে রিভিউজি পলিসি রিভিউ?
না। এই পর্যালোচনা কোনো দেশের প্রতি সুনির্দিষ্ট কোনো সুপারিশ করেনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর