× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ২ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

ফেনোফাইব্রেট কোভিড-১৯ সংক্রমণ ৭০ শতাংশ কমিয়ে দিতে পারে

শরীর ও মন

নিজস্ব সংবাদদাতা
৭ আগস্ট ২০২১, শনিবার
সর্বশেষ আপডেট: ১০:৩৬ পূর্বাহ্ন

কোভিড-১৯ নিয়ে গোটা বিশ্বেই নানা পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে। চিকিৎসার নতুন নতুন দিক উন্মোচিত হচ্ছে। এবার সেরকমই একটি নতুন পথের সন্ধান পেয়েছেন গবেষকরা।  যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম, কেলে বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইতালির সান রাফায়েল সায়েন্টিফিক ইনস্টিটিউটের নেতৃত্বে গঠিত একটি গবেষক দল দেখিয়েছে যে ফেনোফাইব্রেট এবং এর সক্রিয় রূপ ফেনোফাইব্রিক অ্যাসিড ল্যাবরেটরিতে কোষে কোভিড-১৯ সংক্রমণ উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে ।Frontiers in Pharmacology তে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, লাইসেন্সকৃত ওষুধ ফেনোফাইব্রেট, যা সাধারণত রক্তে ফ্যাট জাতীয় পদার্থের অস্বাভাবিক মাত্রা কমাতে ব্যবহৃত হয়, এটি SARS-CoV-2 সংক্রমণ ৭০ শতাংশ পর্যন্ত কমাতে পারে। SARS-CoV-2 ভাইরাসের পৃষ্ঠে স্পাইক (S) প্রোটিন এবং হোস্ট কোষে ACE2 রিসেপ্টর প্রোটিনের মধ্যে মিথস্ক্রিয়ার মাধ্যমে হোস্টকে সংক্রমিত করে। ACE2 এবং স্পাইক (S) প্রোটিনের এই যে পারস্পরিক আদানপ্রদান হয় তা নিষ্ক্রিয় করতে ফেনোফাইব্রেট জাতীয় ওষুধের কার্যকারিতা ইতিমধ্যেই গবেষকদের একটি প্যানেল প্রত্যক্ষ করেছে। ফেনোফাইব্রেটকে চিহ্নিত করার পর, গবেষকরা ২০২০ সালে পরীক্ষাগারে SARS-CoV-2 ভাইরাসের আসল স্ট্রেইন ব্যবহার করে সেই কোষে ফেনোফাইব্রেট ওষুধের কার্যকারিতা পরীক্ষা করে দেখেন। তখন তারা দেখতে পান  ফেনোফাইব্রেট সংক্রমণ ৭০ শতাংশ পর্যন্ত হ্রাস করতে পেরেছে ।এছাড়াও জানা গেছে যে, ফেনোফাইব্রেট সার্স-কোভ-২ এর নতুন রূপগুলির বিরুদ্ধে সমানভাবে কার্যকরী, যার মধ্যে রয়েছে আলফা এবং বেটা। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে এর কার্যকারিতা নিয়ে গবেষণা এখন চলছে।
গুরুত্বপূর্ণভাবে, ফেনোফাইব্রেটের স্ট্যান্ডার্ড ক্লিনিকাল ডোজ ব্যবহার করে যে পরীক্ষা করা হয়েছে তা নিরাপদ বলে প্রমাণিত হয়েছে। গবেষক টিমের সহ লেখক ডাঃ এলিসা ভিসেনজি জানাচ্ছেন,  'আমাদের তথ্য ইঙ্গিত দেয় যে, ফেনোফাইব্রেট কোভিড-১৯ এর উপসর্গ কমাতে সাহায্য করে এবং এটি দেহে ভাইরাস সংক্রমণের সম্ভাবনা কমায়। ''ফেনোফাইব্রেট ওষুধটি মুখ দিয়ে সেবন করতে হয় যা বিশ্বব্যাপী খুব সস্তা এবং সহজলভ্য। পাশাপাশি এর ব্যাবহারিক প্রয়োগের যে ইতিহাস রয়েছে তা নিরাপদ বলেই পরিগণিত হয়েছে। নিম্ন-মধ্য আয়ের যে দেশগুলি রয়েছে সেখানে এই ফেনোফাইব্রেট জাতীয় ওষুধ ব্যবহার করা যেতে পারে। এছাড়াও যাদের জন্য টিকা সুপারিশ করা হয় না বা উপযুক্ত নয় যেমন শিশু, যাদের হাইপার-ইমিউন ডিসঅর্ডার আছে তাদের ক্ষেত্রে ফেনোফাইব্রেট জাতীয় ওষুধ নিরাপদযোগ্য বলে জানাচ্ছেন ডাঃ এলিসা ভিসেনজি। গবেষকরা এখন হাসপাতালে ভর্তি কোভিড-১৯ রোগীদের ওপর এই ওষুধের প্রয়োগের জন্য আহ্বান জানাচ্ছেন। বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হাসপাতালের নেতৃত্বে এবং ইসরায়েলের জেরুজালেমের হিব্রু বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে দুটি ক্লিনিকাল ট্রায়াল চালানো হচ্ছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
৬ আগস্ট ২০২১, শুক্রবার, ১০:৫৭

বাংলাদেশেও ঔষধটি ব্যবহার করে কার্যকারিতা পরীক্ষা ও চিকিৎসা করা দরকার মনে করি । এতে যদি একজন রোগীর ও প্রাণ রক্ষা হয় তাও ভাল ।

অন্যান্য খবর