× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ৩ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

দু’দিন পতনে বাজার মূলধন কমলো সাড়ে ১৮ হাজার কোটি টাকা

শেষের পাতা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, রবিবার

টানা ৬ সপ্তাহ ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর গেল সপ্তাহ কিছুটা পতনের মধ্য দিয়ে পার করেছে দেশের শেয়ারবাজার। গত সপ্তাহে দু’দিন সূচকের পতন হয়। এর ফলে গত সপ্তাহে লেনদেনসহ বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম কমে গেছে। এতে দুই স্টক এক্সচেঞ্জে বাজার মূলধন কমেছে ১৮ হাজার ৬৯৯ কোটি ১৪ লাখ টাকা। এর আগে গত ৬ সপ্তাহের উত্থানে ডিএসই’র বাজার মূলধন ৫০ হাজার কোটি টাকার ওপরে বাড়ে। সাপ্তাহিক পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।
বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহের শুরুতে বাজার মূলধন ছিল ৫ লাখ ৮৬ হাজার ৩১৮ কোটি ৯৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা। সপ্তাহের শেষে তা দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৪৭৫ কোটি ৩৪ লাখ ৫১ হাজার টাকা। এক সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে বাজার মূলধন কমেছে ১১ হাজার ৮৪৩ কোটি ৬১ লাখ ৯ হাজার টাকা।
অপরদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গত সপ্তাহের শুরুতে বাজার মূলধন ছিল ৫ লাখ ৫ হাজার ৪৫৫ কোটি ৯২ লাখ টাকা। সপ্তাহের শেষদিন তা দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৯৮ হাজার ৬০০ কোটি ৩৮ লাখ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইতে মূলধন কমেছে ৬ হাজার ৮৫৫ কোটি ৫৩ লাখ টাকা। আলোচ্য সময়ে দুই স্টক এক্সচেঞ্জে বাজার মূলধন কমেছে ১৮ হাজার ৬৯৯ কোটি ১৪ লাখ টাকা।
ডিএসই ও সিএসই তথ্য মতে, গত সপ্তাহে ডিএসইতে ১১ হাজার ১২২ কোটি ৩৯ লাখ ৪৫ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ১৩ হাজার ৪৪৪ কোটি ১৮ লাখ ২৪ হাজার টাকা। আলোচ্য সময়ের ব্যবধানে লেনদেন কমেছে ২ হাজার ৭৬৫ কোটি ৭৮ লাখ ৭৮ হাজার টাকা বা ১৯.৯১ শতাংশ।
সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই’র প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩০ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ২২৮ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৫৭৭ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২৭ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ৬৭৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে।
ডিএসইতে গত সপ্তাহে ৩৭৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এরমধ্যে বেড়েছে ৮৪টির, কমেছে ২৮২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১২টির শেয়ার ও ইউনিট দর।
গত সপ্তাহের ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৫৮৯ কোটি ৮৫ লাখ ৮ হাজার টাকা, যা মোট লেনদেনের ৫.৩০ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৩৩৬ কোটি ২৭ লাখ ৫১ হাজার টাকা। ২০৩ কোটি ৮৩ লাখ ২৬ হাজার টাকা লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস। এ ছাড়া লেনদেনের শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- সাইফ পাওয়ার টেক, বৃটিশ আমেরিকান টোব্যাকো, লাফার্জাহোলসিম বাংলাদেশ, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস, ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স, আইপিডিসি ফাইন্যান্স ও ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স।
এদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গত সপ্তাহে ৪০৬ কোটি ৫০ লাখ ৬১ হাজার ২৪৩ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৪৬৮ কোটি ১৩ লাখ ৯১ হাজার ৩৭৪ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইতে লেনদেন কমেছে। সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৯ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১ হাজার ১৪১ পয়েন্টে। সিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে সিএসসিএক্স ৯ পয়েন্ট বেড়ে ১২ হাজার ৬৮২ পয়েন্টে, সিএসই-৩০ সূচক ১৩২ পয়েন্ট কমে ১৫ হাজার ৪৬১ পয়েন্টে, সিএসই-৫০ সূচক ৮ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৫৫১ পয়েন্টে অবস্থান করছে। সিএসইতে গত সপ্তাহে ৩৪৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এরমধ্যে বেড়েছে ৮৪টির, কমেছে ২৫০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৯টির শেয়ারের দর।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর