× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ৩ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

সখীপুরে ইউনিয়ন পরিষদের সীমানা নিয়ে আপত্তি, ৪ গ্রামবাসীর মানববন্ধন

বাংলারজমিন

সখীপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার

টাঙ্গাইলের সখীপুরে ইউনিয়ন পরিষদ বিভাজন হওয়ায় সীমানা নির্ধারণ নিয়ে আপত্তি করে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে ৪ গ্রামের মানুষ। গত শনিবার সকালে ঢাকা-সাগরদীঘি সড়কের কালিয়া পাগল মোড়ে প্রায় ৩ শতাধিক মানুষ এতে অংশ নেয়। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন শেষে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হানিফ মিয়া, মো. মহিউদ্দিন, আনোয়ার তালুকদার, মো. রিয়াজ উদ্দিন, কালিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শামীম আল মামুন, মো. বিল্লাল হোসেন প্রমুখ। এর আগে সীমানা সংশোধনের দাবি জানিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান, ইউএনও এবং  ডিসি বরাবর আবেদন জানিয়েছে সাধারণ জনগণ। সম্প্রতি উপজেলার বৃহত্তর ৬ নম্বর কালিয়া ইউনিয়ন ভেঙে বড়চওনা ও কালিয়া নামে দুটি ইউনিয়ন গঠন করা হয়। কালিয়া ইউনিয়ন ঘেঁষা জামাল হাটকুড়া, পাগল মোড়, ধলীপাড়া ও কুটিরশিল্প পাড়া নামের ৪টি গ্রাম বড়চওনা ইউনিয়ন পরিষদে সংযুক্ত হওয়ায় প্রচণ্ড ক্ষোভ প্রকাশ করে সাধারণ মানুষ। কালিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান বিএসসি বলেন, দুটি ইউনিয়ন গঠন প্রক্রিয়ার সময় একটি রেজুলেশন করা হয়। সেখানে এই ৪টি গ্রামকে কালিয়া ইউনিয়নেই রাখা হয়েছিল। কীভাবে তা উল্টে গেল বিষয়টি আমার বোধগম্য নয়।
শামীম আল মামুন বলেন, পায়ে হেঁটে ৫ মিনিটের মধ্যেই এই ৪ গ্রামের মানুষ কালিয়া ইউনিয়নে আসতে পারে। বড়চওনা ইউনিয়নে  যেতে অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হবে। তাই আমরা কালিয়া ইউনিয়নেই থাকতে চাই।


অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর