× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ৩ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

রাশিয়ায় সরাসরি পণ্য রপ্তানি চাইলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

অনলাইন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার
(৩ সপ্তাহ আগে) সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১, সোমবার, ৫:৫৩ অপরাহ্ন

প্রতিবন্ধকতা দূর করে রাশিয়ায় সরাসরি পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্র প্রস্তুত করতে দেশটির রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে রুশ সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

সোমবার সচিবালয়ে নিজের দপ্তরে ঢাকায় নবনিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার ভিকেনতেভিচ মাস্তিতস্কি-এর সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় তিনি এ সহযোগিতা চান।

রাষ্ট্রদূতের উদ্দেশে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমানে রাশিয়ার বাজারে সরাসরি বাংলাদেশি পণ্য রপ্তানির সুযোগ নেই। ব্যাংকিং চ্যানেলে লেনদেন করতে না পারা এবং আরও কিছু শুল্ক জটিলতার কারণে অন্য দেশের মাধ্যমে রাশিয়ার বাজারে বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানি করতে হচ্ছে। এতে রাশিয়ার বাজারে বাণিজ্য আশা অনুযায়ী বাড়ছে না।’

টিপু মুনশি বলেন, ‘রাশিয়ার বাজারে বাংলাদেশের তৈরি পোশাকসহ বিভিন্ন পণ্যের বিপুল চাহিদা রয়েছে। অথচ এই তৈরি পোশাকও বিভিন্ন জটিলতার কারণে রাশিয়ার বাজারে নিতে অন্য দেশের মাধ্যমে পাঠাতে হচ্ছে। তাই তৈরি পোশাকসহ অন্যান্য পণ্য সরাসরি রপ্তানিতে রাশিয়ান সরকারের আন্তরিক সহযোগিতা প্রয়োজন।’

বাণিজ্যমন্ত্রী রাষ্ট্রদূতকে জানান, জটিলতাগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলো সমাধানের চেষ্টা চলছে। সমস্যার সমাধান হলে রাশিয়ার বাজারে বিপুল পরিমাণ বাংলাদেশের তৈরি পণ্য রপ্তানি করা সম্ভব হবে।

বাণিজ্য সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে রুশ সরকারের সহযোগিতা দাবি করে বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ এখন বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।
বাংলাদেশ এখন উন্নতমানের পণ্য প্রতিযোগিতামূলক মূল্যে সরবরাহ করতে সক্ষম। বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের তৈরি পণ্যের চাহিদা বাড়ছে। রাশিয়ার সহযোগিতায় বাংলাদেশ রাশিয়াসহ ইউরেশিয়ান ইকোনমিক ইউনিয়ন ও সিআইএসভুক্ত অন্যান্য দেশে রপ্তানি বৃদ্ধি করতে আগ্রহী।’

এসব আগ্রহের জবাবে মন্ত্রীকে অবহিত করে নবনিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার ভিকেনতেভিচ মাস্তিতস্কি বলেন, ‘বাংলাদেশকে রাশিয়া বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকে। তাই বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি করতেও আগ্রহী। কারণ আমাদের দেশে (রাশিয়ায়) বাংলাদেশের পণ্যের অনেক চাহিদা রয়েছে। চলমান বাণিজ্য বাধা দূর হলে উভয় দেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়বে। রাশিয়ান সরকার চলমান সমস্যাগুলো দূর করতে আন্তরিক। রাশিয়া বাংলাদেশের উন্নয়নে সহযোগী হতে চায়।’

২০২০-২০২১ অর্থ বছরে রাশিয়ায় ৬৬ কোটি ৫৩ লাখ ১০ হাজার ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছে বাংলাদেশ। একই সময়ে আমদানি করেছে ৪৬ কোাটি ৬৭ লাখ ডলারের পণ্য।

রুশ রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রীর সাক্ষাতের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ, অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) মো. হাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব (এফটিএ) নূর মো. মাহবুবুল হকসহ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ কমকর্তারা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
শহীদুল আলম
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার, ১০:৪৫

শ্রমিক পাঠানোর ব্যবস্থা করুন। শিক্ষা ক্ষেত্রে কৃষিকে অগ্রাধীকার দিন। উপজেলা কৃষি অফিসের সাথে সমন্বয় করে প্রাকটিকাল কৃষি শিক্ষা প্রদান করা হলে আমরা স্কিল্ড ম্যানপাওয়ার রপ্তানী করতে পারবো।

অন্যান্য খবর