× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ২ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

নির্বাচনে বাইরের কারও সহায়তার দরকার নেই

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার

বাংলাদেশের আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাইরের কারও সহযোগিতার প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। সোমবার দুপুরে তথ্য ও সমপ্রচার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরামের প্রথম প্রকাশনা সাময়িকী ‘বিএসআরএফ বার্তা’ উদ্বোধনকালে তিনি এই মন্তব্য করেন। বাংলাদেশ চাইলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতিসংঘ সব ধরনের সহযোগিতা  দিতে প্রস্তুত বলে রোববার এক অনুষ্ঠানে জানান ঢাকাস্থ জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সেপ্পো। সাংবাদিকদের এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ সোমালিয়া বা ইথিওপিয়া নয় যে, এখানে নির্বাচন অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের সহায়তা লাগবে। নির্বাচনের এখনো অনেক বাকি। দেশের নির্বাচন কমিশন শক্তিশালী ও স্বাধীন। বাংলাদেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য কারও সহযোগিতা দরকার আছে বলে আমি মনে করি না। কারণ ইতিপূর্বে নির্বাচন কমিশন অত্যন্ত সুষ্ঠু ও স্বচ্ছভাবে অনেক নির্বাচন করেছে।
নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে বিএনপি নির্বাচনের যে দাবি জানিয়েছে সে বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি নেতৃবৃন্দ গত সাড়ে ১২ বছর ধরে এই দাবি করে আসছেন এবং জনগণকে আহ্বান জানিয়ে আসছেন কিন্তু জনগণ তো তাদের আহ্বানে সাড়া দেয়নি এবং সাড়া দেয়ার কোনো কারণও নাই। বাংলাদেশে সংবিধান অনুযায়ী আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এবং সংবিধান অনুযায়ী বর্তমান সরকারই নির্বাচনকালীন সরকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে। বিএনপিকে বলবো, এ ধরনের  ফাঁকা বুলি আউড়িয়ে লাভ হবে না।’ বিএনপি মহাসচিবের মন্তব্য- ‘সরকার ভয়ে খালেদা জিয়াকে স্থায়ীভাবে মুক্তি দিচ্ছে না’-এর জবাবে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি’র বরং সরকারকে বহু আগে ধন্যবাদ দেয়া প্রয়োজন ছিল। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া জামিনে মুক্তি পাননি কিংবা আদালত কর্তৃক খালাসও পাননি। প্রধানমন্ত্রী আইনপ্রদত্ত ক্ষমতাবলে তার সাজা স্থগিত করেছেন। সেই কারণে তিনি কারাগারের বাইরে আছেন। এই জন্য বিএনপি’র শুকরিয়া আদায় করা প্রয়োজন, সরকারকে ধন্যবাদ দেয়া উচিত। সরকার যেকোনো সময় চাইলে ৬ মাসের সাজা স্থগিতাদেশ বাতিল করতে পারে। সে আদেশ যদি আগামীকাল বাতিল হয় তাহলে তখনই বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে ফেরত যেতে হবে। এটিও বিএনপি’র মনে রাখা প্রয়োজন রয়েছে বলে আমি মনে করি। সাংবাদিক নেতাদের ব্যাংক হিসাব তলব করে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের চিঠি পাঠানোর ঘটনায় কোনো উদ্বেগের কারণ নেই বলে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সরকার যে কারও ব্যাংক হিসাব তলব করতে পারে। এমপি, ব্যবসায়ী, সরকারি কর্মকর্তাদেরও ব্যাংক হিসাব তলব হয়। তবে কেউ স্বচ্ছ থাকলে এখানে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই। কারণ এই ব্যাংক হিসাব থেকে যখন তাদের স্বচ্ছতা বেরিয়ে আসবে, তখন মানুষের সামনে তাদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে। তবে এটি কেন সংগঠনের নাম দিয়ে চাওয়া হলো এবং কেন এটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলো, সেটিই প্রশ্ন- সে প্রশ্ন অনেকেই রেখেছে। সাংবাদিকরা এ সময় বিটিআরসি থেকে আইপি টিভি’র ডোমেইন বন্ধ করা নিয়ে প্রশ্ন করলে ড. হাছান বলেন, ‘আইপি টিভি রেজিস্ট্রেশন দেয়ার দায়িত্ব হচ্ছে তথ্য ও সমপ্রচার মন্ত্রণালয়ের। কিন্তু তারা ডোমেইন বরাদ্দ পায় বিটিআরসি থেকে। ডোমেইন বরাদ্দ দেয়ার আগে এখন থেকে অত্যন্ত সতর্ক হতে হবে। আগামী ২২শে সেপ্টেম্বর আমরা টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় এবং বিটিআরসি’র সঙ্গে ত্রিপক্ষীয় একটি বৈঠক করবো।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Shahab
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার, ৭:৪২

Only need your help from India???????

Faruk
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার, ১১:০৮

জাস্ট সিম্পল, তারা আসলেতো আর জিততে পারবেন না।

আবুল কাসেম
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার, ৯:০৩

সরকারের তরফ থেকে বিএনপির প্রতি যে রহমতের বারি বর্ষণ হচ্ছে তার প্রকৃষ্ট উদাহরণ হচ্ছে খালেদা জিয়াকে কারাগারে না রেখে বাসায় থাকতে দেওয়া। বিএনপি এই বিষয়টির শোকর গুজার না করলে যে কোনো সময় সরকারের রহমতের বারি বর্ষণ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তখন নিয়ম অনুযায়ী খালেদা জিয়াকে আবার কারাগারে ফিরে যেতে হবে তথ্য মন্ত্রীর বক্তব্যে এই হুমকিটা বিএনপির আমলে নেবে নাকি রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক ভাবে মোকাবিলা করবে তা দেখার বিষয়। কারণ, রাজনীতির সাথে কূটনীতি অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। বিএনপি কূটনীতি বুঝেনা। তাই তাদের আজকের এই দূরাবস্থা।

quamrul
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার, ৯:৩৬

বাইরের লোক আসলে সব জানাজানি হয়ে যাবে ।

আরিয়ান খান
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার, ৮:৪৪

মন্ত্রী মহোদয়, যা বলেছেন আমি তার সাথে একমত। যে কোন নির্বাচন করার জন্য, উন্নত অবকাঠামো সহ আমাদের একটি ভালো নির্বাচন কমিশন আছে। যদি আমরা তা না করতে পারি তাহলে বাংলাদেশ একটি দুর্বল দেশ হিসেবে প্রমাণিত হবে। আমরা এখন একটি সুশৃঙ্খল দেশ যেখানে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত। আমরা নিজেদের মধ্যে তর্ক করতে পারি কিন্তু আমরা আমাদের মাতৃভূমির সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করতে পারি না।

Desher Bhai
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার, ২:১৬

Just give them a chance; you will find out the truth.

অন্যান্য খবর