× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৯ অক্টোবর ২০২১, মঙ্গলবার , ৩ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ
কলকাতা কথকতা

কলকাতা হাইকোর্টের যুগান্তকারী রায়, সম্মতিতে যৌনমিলন ধর্ষণ নয়

কলকাতা কথকতা

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা
(৩ সপ্তাহ আগে) সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৯:৪০ পূর্বাহ্ন

কলকাতা হাইকোর্টের এক যুগান্তকারী রায়ে ধর্ষণে অভিযুক্ত এক ২১ বছরের যুবক বেকসুর খালাস পেলেন। হাইকোর্টের বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্য তার ল্যান্ডমার্ক রায়ে বলেছেন, দুজনের সম্মতিতে শারীরিক মিলন হলে তা কখনোই ধর্ষণের পর্যায়ভুক্ত হতে পারে না। এক্ষেত্রে তরুণীর বয়স ১৮ বছরের নিচে হওয়ায় পকসো ধারায় মামলা আনা হয়েছিল। বিচারপতি বলেন, তরুণী ও তার মায়ের সাক্ষ্য থেকে জানা যাচ্ছে যে, উল্লেখিত তরুণ-তরুণীর মধ্যে একটি রোমান্টিক সম্পর্ক ছিল এবং দুজনের সম্মতিতেই তারা শারীরিক ভাবে লিপ্ত হয়েছে। ঘটনার সময় তরুণীর বয়স ১৭ বছর ছিল জেনেও বিচারপতি বলেন, পুরুষের শারীরিক গঠনের জন্য এক্ষেত্রে ধর্ষণ প্রমান হয় না। তরুণী ১৮ বছরের কম বয়স্ক হতে পারে কিন্তু সহবাসে তার আপত্তি ছিল না। এগ্রিড সেক্স কখনও ধর্ষণ হতে পারে না। বিচারপতির এই রায়কে ঐতিহাসিক দাবি করে পুরুষদের স্বাধিকার রক্ষার কাজে নিযুক্ত এক এনজিও সংস্থার প্রধান নন্দিনী ভট্টাচার্য বলেন, এই রায় পুরুষদের হাত শক্ত করবে।
দৈহিক মিলনের পর স্বার্থসিদ্ধি না হলেই যে সব মেয়েরা পুরুষদের ওপর ধর্ষণ-এর অভিযোগ আনে তারা এবার একটু সচেতন হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
TAWHID MOLLAH
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, শুক্রবার, ১০:২৫

বর্তমান সমাজে পুরুষের চেয়ে নারীরাই ধর্ষনের জন্য বেশি দায়ী বলে অনেক সামাজিক কলামিষ্ট মনে করেন।

Khokon
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:৩৪

রায় ঐতিহাসিক কিন্তু বিষদ ব্যাখ্যা করা প্রয়োজন, কোনটা ধর্ষণ কোনটা ধর্ষনের বহির্ভূত ? অনেকে নিজের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য ৬/৯ এমনকি এর অধিক সময়ের পরও অন্যকে ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত করে মামলা করেন যে, তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণ করা হয়েছে ? আসলে কোনও ক্রমেই এটা ধর্ষণ হতে বা ধর্ষনের মামলা হতে পারে না ? এটা দিয়ে প্রতরনার মামলা সাজানো হতে পারে । কিন্তু এক শ্রেণীর পেশাদারী অর্থ লোভী মেয়েরা বছর পার করেও ধর্ষণ মামলা করেন, যেটার কোন মেডিক্যাল রিপোর্টের কার্য্যকারিতা থাকে না কিন্তূ পুলিশ ও আইনজীবীরা তাদের সার্থে উভয় পক্ষকে ব্যাবহার করে মোটা অংক হাতিয়ে নেয় আর বিচারপতিরা কাগজ পত্র দেখে রায় দেন ! ধর্ষণ স্থান, কাল, পাত্র ভেদে এক বা দুই বার হতে পারে কিন্তু এর বেশী হয়ে গেলে তা ধর্ষণ হতে পারে না ? তাই এটাকে গুরুত্ব সহকারে নিয়ে এক মাসের বেশি হলে কোনো সেক্স্যুয়াল ইন্টারকোর্সকে ধর্ষণ বলা যাবে না বলে স্বীকৃতি দেওয়া আবশ্যক । বাংলাদেশের আইনেও এর ব্যাতিক্রম হওয়া উচিত নয় ।

আহমেদ জামান
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১১:৩৭

এই রায় সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে নারী ও পুরুষের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নে সাহায্য করবে। আদালতের এই রায় নারীর প্রতি যৌন হয়রানি ও যৌন সহিংসতা কমাতে সাহায্য করবে। নারী ও পুরুষ বিপরীত লিঙ্গের মানুষ এবং উভয়েই একে অপরের প্রতি আকৃষ্ট হবে এটাই স্বাভাবিক। সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে নারী ও পুরুষের মধ্যে সহযোগিতার সম্পর্ক সমাজের অগ্রগতিতে সাহায্য করে।

অন্যান্য খবর