× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৩ অক্টোবর ২০২১, শনিবার , ৭ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

‘আরো মুসলিম ক্রিকেটার পাবে ইংল্যান্ড’

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার

২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালের ঘটনা। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জিতে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ শিরোপা নিজেদের করে নিয়েছে ইংল্যান্ড। শিরোপা হাতে পাওয়ার পর শ্যাম্পেন নিয়ে উদযাপনে মাতেন ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়রা। তখন দেখা যায় পুরো দল থেকে আলাদা হয়ে কিছুটা দূরে দাঁড়িয়েছেন ইংল্যান্ডের দুই মুসলিম ক্রিকেটার মঈন আলী ও আদিল রশিদ। মূলত ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণেই সতীর্থদের সঙ্গে মদ ছেটানো উল্লাসে যোগ দেননি মঈন-আদিল।
ক্যারিয়ারজুড়েই এমন ধর্মীয় বিশ্বাস রেখে ক্রিকেট খেলেছেন মঈন আলী। প্রায় সাত বছর ইংল্যান্ডের হয়ে টেস্ট খেলার পর সাদা পোশাকের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন ৩৪ বছর বয়সী এ অলরাউন্ডার।
বিদায়বেলায় তিনি আশা প্রকাশ করেছেন ইংল্যান্ড দলে আরও বেশি বেশি মুসলিম ক্রিকেটার দেখার। তিনি আশাবাদী, তার দেখাদেখি আরও অনেক মুসলিম ধর্মালম্বীই এগিয়ে আসবেন ক্রিকেটে।
অবসর নেয়ার পর বিদায়ী বার্তায় মঈন বলেছেন, ‘সবসময়ই অনুপ্রেরণার জন্য কাউকে প্রয়োজন হয়। অথবা এমন কারো প্রয়োজন হয়, যাকে দেখে আপনি ভাবতে পারেন যে, সে পারলে আমিও পারবো।
আমি আশা করছি, এখন অনেক মানুষই এমনটা ভাবছে।’
দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক হাশিম আমলাকে নিজের অনুপ্রেরণা হিসেবে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘আমি জানি সে ইংল্যান্ডের নয়, তবু হাশিম আমলার মতো একজন... তাকে যখন প্রথম দেখলাম, আমি ভেবেছি সে যদি পারে তাহলে আমিও পারবো। এই ছোট বারুদটা প্রয়োজন হয়।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর