× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৫ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ৯ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ
পিএসজি-ম্যান সিটি লড়াই আজ

মেসি-গার্দিওলার পুনর্মিলন

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার

পেপ গার্দিওলা বার্সেলোনায় পাঁচ বছরের কোচিং ক্যারিয়ারে জেতেন ১৪ শিরোপা। এই স্প্যানিশ কোচের প্রধান অস্ত্র ছিলেন লিওনেল মেসি। ডাগআউটে ছক কষতেন গার্দিওলা। মাঠে সেটার বাস্তব রূপ দিতে বড় ভূমিকা থাকতো মেসির। ৯ বছর আগে ন্যু ক্যাম্প ছাড়েন গার্দিওলা। বায়ার্ন মিউনিখ ঘুরে এখন ম্যানচেস্টার সিটির ডাগআউটে থিতু হয়েছেন তিনি। লিওনেল মেসি ২১ বছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে নাম লিখিয়েছেন পিএসজিতে। এখনো ফরাসি জায়ান্টদের হয়ে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারেননি।
তার আগেই গুরুর মুখোমুখি হতে হচ্ছে আর্জেন্টাইন সুপারস্টারকে। আজ বাংলাদেশ সময় রাত ১টা চ্যাম্পিয়নস লীগে সিটিজেনদের আতিথ্য দেবে পিএসজি।
এই ম্যাচে মেসির মাঠে নামা নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছিল। তবে আর্জেন্টিনা অধিনায়ক অনুশীলনে ফেরায় মাঠে নামা নিয়ে সংশয় নেই।
গার্দিওলার সঙ্গে মেসির দেখা হবে পাঁচ বছর পর। ২০১৬ সালে ম্যানসিটির কোচ হিসেবে আসার প্রথম মৌসুমেই বার্সেলোনার মুখোমুখি হন গার্দিওলা। প্রথম লেগে মেসির হ্যাটট্রিকে বার্সেলোনা জেতে ৪-০ গোলে। সিটির মাঠে বার্সেলোনা ৩-১ গোলে হারলেও একমাত্র গোলটি আসে মেসির পা থেকে। সেবার মেসি ছিলেন দারুণ ছন্দে। পিএসজির জার্সিতে এখনো গোলের খাতা খোলা হয়নি মেসির। গোল পেতে মরিয়া মেসি। নতুন ঠিকানায় মেসি আবারো মুখোমুখি হতে চলেছেন গার্দিওলার। শেষবার গুরুকে হারিয়ে দিয়েছিলেন মেসি। এবার কাজটি সহজ হবে না মেসির জন্য।
ম্যানসিটির বিপক্ষে মেসিদের অন্যরকম এক চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। চ্যাম্পিয়নস লীগে কখনই সিটিজেনদের হারাতে পারেনি পিএসজি। আগের পাঁচ লড়াই সিটির জয় তিন ম্যাচে, ড্র দুটি। গত আসরের সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল দু’দল। প্রথম লেগে ম্যানসিটি জেতে ২-১ গোলে। দ্বিতীয় লেগে গার্দিওলার দল জেতে ২-০ ব্যবধানে।
বলা হয়ে থাকে মেসির ক্যারিয়ার গড়ায় বড় ভূমিকা গার্দিওলার। কিন্তু স্প্যানিশ কোচ তার সবচেয়ে সফল কোচিং ক্যারিয়ার পার করেছেন মেসিকে নিয়ে। এমনকি ৩৪ বছর বয়সী ফরোয়ার্ডের সঙ্গে সম্পর্ক চুকিয়ে ফেলার পর আর কখনো চ্যাম্পিয়নস লীগ জেতা হয়নি গার্দিওলার। তার অধীনে ইউরোপ সেরার প্রতিযোগিতায় ৪৭ ম্যাচ খেলেছেন মেসি, যেখানে তার গোল ৪৩টি এবং জয় ২৮টি। ১৫ ম্যাচ টাই হয় এবং হেরে গেছে কেবল চারটি ম্যাচ। গার্দিওলা বার্সা ছাড়ার পর বায়ার্ন মিউনিখে তিন মৌসুম কাটান। আর ম্যানসিটিতে আছেন ২০১৬ সাল থেকে। গত আট বছরে মেসি গার্দিওলার দলের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লীগে খেলেছেন চার ম্যাচ, দুইবার বায়ার্নের বিপক্ষে আর ম্যানসিটির বিপক্ষেও দুইবার। বুন্দেসলিগা দলের বিপক্ষে ২০১৪-১৫ মৌসুমের সেমিফাইনালের দুই লেগ মিলিয়ে বার্সার ৫-৩ গোলের জয়ে দুটি গোল করেছিলেন মেসি। ২০১৬-১৭ মৌসুমে গ্রুপ পর্বে মেসির বার্সার মুখোমুখি হয় গার্দিওলার ম্যানসিটি। দুইবারের দেখায় হ্যাটট্রিকসহ করেন চার গোল।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর