× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৫ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ৯ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

কুষ্টিয়ায় দুই শিক্ষার্থী করোনা আক্রান্ত

অনলাইন

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
(৩ সপ্তাহ আগে) সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১, মঙ্গলবার, ৯:৫১ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়ার খোকসা জানিপুর পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় শিক্ষার্থীদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সতর্কতা বাড়িয়েছেন। গত ২৫ ও ২৬শে সেপ্টেম্বর বিদ্যালয়ের দু’জন শিক্ষার্থী করোনা শনাক্ত হয়েছে এমন খবরে সোমবার বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেছে।
বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মনজিরুল হাসান জানান, দু’জন শিক্ষার্থী করোনা পজিটিভ হওয়ার সংবাদে অভিভাবক, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। তবে করোনা আক্রান্ত শিক্ষার্থী ২ জন সুস্থ আছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
খোকসা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নাজমুল হক বলেন, দুইজন শিক্ষার্থী করোনা পজিটিভ সংবাদ জানার পর উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। শিক্ষার্থী দুইজন সুস্থ ও হোম আইসোলেশনে আছে। বিদ্যালয় বন্ধ করা হবে কিনা পরবর্তী পরিস্থিতির ওপর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
এবিষয়ে খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার কামরুজ্জামান সোহেল বলেন, গত ৪ দিনে চারজন করোনা পজিটিভ রোগী শনাক্ত হয়েছে। শুনেছি এদের মধ্যে দু'জন শিক্ষার্থী রয়েছে।।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Zaman
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার, ১২:১০

দুক্ষজনক হলেও সত্যি, অনেক স্কুল কলেজে স্বাস্থ্য বিধির বালাই নেই। ক্লাসে ঢুকে দেখছি মাস্ক নেই সবার। এক বেঞ্চ দুই জন বসার কথা, সেখানে গাদাগাদি করে বসছে। শিক্ষক রা কিছু বলছে না, বা বলার সাহস পাচ্ছে না। শিক্ষক, কর্মচারী কেউ মাস্ক পরে কেউ পরে না। বোধ, বোধ, বোধ আসবে কবে?

Kazi
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার, ১১:৪৮

যেহেতু পশ্চিমা ধনী দেশগুলি টিকাদান কার্যক্রম শেষ করেছে এখন টিকার সরবরাহ বাড়ছে । তাই ডিসেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করলে শিক্ষার্থীদের টিকাদান শেষ হত। তখন আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও কমত। কিন্ত এক দল লোক সভা সমাবেশ করে দাবি জানিয়ে গণ্ডগোলের পাঁয়তারা শুরুর কারণে সরকার তা থামাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিয়েছে । প্রধানমন্ত্রীর কথা মানা উচিত ছিল।

পারভেজ
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার, ৯:২৪

** ডেলটা ভ্যারিয়েন্টে ৯০ শতাংশ গ্রামের লোক আক্রান্ত ( যেহেতু ৯০ শতাংশ লোক গ্রামে বাস করে ) ** যেসব শিক্ষার্থী করোনা আক্রান্ত স্কুলে এসেই আক্রান্ত হয়েছে প্রমাণিত নয় ( এটা প্রমাণ করা কি সম্ভব? ) সর্বোপরি রাজধানীতে এখনো কোনো ভয়ের সংবাদ আসে নি।

অন্যান্য খবর