× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার , ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

হল খোলার দাবিতে ফের আন্দোলনে ইবি শিক্ষার্থীরা

শিক্ষাঙ্গন

ইবি প্রতিনিধি-
(২ মাস আগে) সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৭:৩৮ অপরাহ্ন

হল খোলার দাবিতে ফের আন্দোলনে নেমেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩ টার দিকে ভিসির বাসভবনের সামনে বিছানা-বালিশ নিয়ে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করে তারা। সেখানে দুই ঘণ্টা অবস্থান করার পর শিক্ষার্থীরা প্রক্টরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে।

এর আগে হল খোলার দাবিতে গত ২৬শে সেপ্টেম্বর ক্যাম্পাসে মশাল মিছিল করে শিক্ষার্থীরা। এসময় দ্রুত হল খোলার দাবি জানানো হয়। তবে প্রশাসন কোন সিদ্ধান্ত না নেয়ায় বৃহস্পতিবার ফের আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের দাবি, হল বন্ধ রেখে পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেয়ায় শিক্ষার্থীদের চরম আবাসন সংকটে পড়তে হয়েছে। কিন্তু প্রশাসন শিক্ষার্থীদের এসব দূর্ভোগ থেকে উদ্ধার করতে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। উল্টো আবাসিক হল খোলার ব্যাপারে গড়িমসি করছে।
অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় গুলো হল খোলার তারিখ ঘোষণা করলেও ইবি প্রশাসন কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি। এ জন্য প্রশাসনের সদিচ্ছা ও আন্তরিকতার অভাবকে দায়ী করেছেন শিক্ষার্থীরা।

পরে পরে বিকেল ৫ টার দিকে শিক্ষার্থীরা প্রক্টর ড. জাহাঙ্গীর হোসেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে। সাক্ষাৎকালে আগামী ৮ই অক্টোবরের মধ্যে হল না খুললে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দেয় শিক্ষার্থীরা। এসময় প্রক্টর শিক্ষার্থীদের দাবির সাথে একমত পোষণ করে বলেন, ইউজিসি ও শিক্ষামন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী কিছু প্রসিডিউর মেইনটেইন করতে গিয়ে হল খোলার সিদ্ধান্ত নিতে সময় লাগছে। ভিসি স্যারকে দাবির বিষয়ে জানাবো। আশা করি তিনি দ্রুত ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেবেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম গণমাধ্যমকে বলেন, আগামী ৪ অক্টোবর একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিং রয়েছে। মিটিংয়ে হল খোলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ১২ই সেপ্টেম্বর থেকে হল বন্ধ রেখে ইবিতে সশরীরে অনার্স ও মাস্টার্সের চূড়ান্ত পরীক্ষা শুরু হয়েছে। একযোগে প্রায় ২৪টি বিভাগে পরীক্ষা চলছে। ফলে ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী এলাকায় অতিরিক্ত ভাড়াসহ স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে অবস্থান করতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর