× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ৩ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ
তদন্ত কমিটি গঠন

চাঁদপুরে সংঘর্ষ, নিহত ৩

অনলাইন

শাহরাস্তি (চাঁদপুর) প্রতিনিধি
(৩ দিন আগে) অক্টোবর ১৪, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১২:২৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট: ৭:৫৯ অপরাহ্ন

কুমিল্লায় পূজামন্ডপে কোরআন পাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ বাজারে পুলিশ ও বিক্ষুব্ধ জনতার মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত তিনজনের জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনা তদন্তে আজ বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসন পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাজীগঞ্জে ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে। একই সঙ্গে ওই রাতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে দুই প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ ।

বুধবার রাতে চাঁদপুর জেলা হাজিগঞ্জ উপজেলার হাজীগঞ্জ বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় গুলিতে ৩ জন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- বাবলু (২৮), আল আমিন (১৮) ও হৃদয় (১৪) নামে এক কিশোর। এছাড়া পুলিশ-জনতাসহ ৩৫-৪০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ফাঁকা গুলি ও টিয়ারশেল ছুড়েছে বলে জানা যায়। এদিকে, সহিংস পরিস্থিতিতে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত হাজীগঞ্জ পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন।

পরিস্থিতি শান্ত করতে হাজীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মো. মাঈনুদ্দিন, পৌর মেয়র আসম মাহবুব উল আলম লিপনসহ নেতারা ও পুলিশ প্রশাসন প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন।

হাজীগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশিদ বলেন, আমরা পরিস্থিতি সামাল দিতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।
হামলাকারীদের শনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বলেন, মৃত্যুর কথা জেনেছি। তবে সংখ্যা নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না। পরিস্থিতি বর্তমানে ভালো রয়েছে।

হাজীগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশিদ জানান, হাজীগঞ্জ বাজার পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Adv.N.I.Bhuiyan
১৪ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৪:১৯

যে হিন্দু মন্দিরে কোরআনের অবমাননা করা হয়েছে ওই মন্দিরের উদযাপন কমিটি ও পরিচালনার দায়িত্বে যারা আছে তাদের তত্ত্বাবধান ছাড়া এই ধরনের অবমাননা কোনদিনও সম্ভব নয় বলে প্রাথমিক ভাবে প্রতীয়মান হয় ঘটনা প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথেই যদি ওই থানার প্রশাসন এই সকল চিহ্নিত দোষীদের গ্রেফতার করত তবে ঘটনা এতদূর যেত না বলে মনে করি ।এখন ঐ সকল দোষীদের গ্রেফতার না করে উল্টো নিরীহ মুসলিমদের গুলি করে মারা হচ্ছে ।দেশে আজ একজন হিন্দু প্রধানমন্ত্রী ও যদি থাকতেন তবুও তারা কুরআন মাজিদ অবমাননার বিরুদ্ধে প্রথম মুহূর্তেই ব্যবস্থা নিতেন কিন্তু আমরা কোথায় আছি ধর্ম নিরপেক্ষ সরকার না থাকার কারণেই আজ এই অবস্থা

হেলাল
১৪ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:১৭

ফাকাগুলি মানে ফাকা বুলি

Belal
১৪ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ২:১১

আল্লাহর লানত মিথ্যাবাদী সাংবাদিকের উপর।

MD. Saiful
১৪ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ২:০৭

পুলিশ ফাঁকা গুলি ও টিয়ারশেল ছুড়লে। এতো গুলি লোক কি ভাবে মারা গেল?

ইমন
১৪ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:৪৭

ফাকা গুলিতেও মানুষ মরে?

Hasan Imam
১৪ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১:০৭

পুলিশ ফাঁকা গুলি ও টিয়ারশেল ছুড়লে। এতো গুলি লোক কি ভাবে মারা গেল?

Kazi
১৩ অক্টোবর ২০২১, বুধবার, ১১:৫৮

সংঘর্ষের হোতা ( হিন্দু বা মুসলমান) যে কোরান শরীফ মণ্ডপে নিয়ে রেখেছে চিহ্নিত করে কঠোর শাস্তি চাই। 

অন্যান্য খবর