× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ১ ডিসেম্বর ২০২১, বুধবার , ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

ছোট দলগুলোর বিপক্ষে ‘স্মার্ট’ ক্রিকেট খেলবে বাংলাদেশ

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
১৬ অক্টোবর ২০২১, শনিবার

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু করবে বাংলাদেশ। প্রথম পর্বে ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের অপর দুই প্রতিপক্ষ স্বাগতিক ওমান এবং প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে সুযোগ করে নেয়া পাপুয়া নিউগিনি। তুলনামূলক দুর্বল প্রতিপক্ষ হলেও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের গলায় সমীহের সুর। আইসিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে টাইগার অধিনায়ক বিনয়ের সঙ্গে জানান, কোনো প্রতিপক্ষকেই ছোট করে দেখতে রাজি নন তিনি; বরং তাদের বিপক্ষে নম্রতার সঙ্গে সর্বোচ্চ পারফরম্যান্স দেখাতে চান। নিজের চোট নিয়েও কথা বলেছেন মাহমুদুল্লাহ। জানিয়েছেন প্রথম ম্যাচেই লাল-সবুজের প্রতিনিধিত্ব করবেন তিনি।
ওমান ও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা থাকলেও প্রথমবারের মতো পাপুয়া নিউগিনির মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। তবে বিশ্বকাপের নবীন দলটির খেলার ভিডিও ফুটেজ দেখেছেন মাহমুদুল্লাহ। টাইগার অধিনায়ক বলেন, ‘কম্পিউটার অ্যানালিস্টের কাছ থেকে পাপুয়া নিউগিনির খেলোয়াড়দের কিছু ভিডিও পেয়েছি। তাদের ব্যাটার বোলারদের দেখেছি। এই বিশ্বকাপে প্রত্যেকেই যোগ্য দল। আমাদের নম্র হতে হবে। বিনয়ী হয়ে তাদের বিপক্ষে ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে।’
টি- টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথম হলেও পাপুয়া নিউগিনিকে হালকাভাবে নিতে নারাজ রিয়াদ। তিনি বলেন, ‘প্রতিটি দলকে আমরা তাদের প্রাপ্য সম্মান দেয়ার চেষ্টা করি। তবুও আমাদের স্মার্ট ক্রিকেট খেলতে হবে, নিজেদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে। তারা অনেক ভালো দল। এই ফরম্যাটে আপনি প্রতিপক্ষকে কোনো সুযোগ দেয়ার সুযোগ রাখেন না। তাই ব্যাটিং করি বা বোলিং, আমাদের নিজেদের সেরাটা দিতে হবে।’
চোটের কারণে ওমান ‘এ’ দলের বিপক্ষে অনানুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচে ছিলেন না মাহমুদুল্লাহ। খেলতে পারেননি শ্রীলঙ্কা, আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দু’টি আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচেও। শঙ্কাটা তাই থেকেই যায়, প্রথম ম্যাচ থেকেই বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিতে পারবেন তো রিয়াদ? উত্তরটা নিজেই দিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘ইনজুরি সেরে উঠছে। পিঠে একটু ব্যথা থাকায় প্রস্তুতি ম্যাচগুলোতে খেলিনি। কয়েক মাস আগেও চোটে পড়েছিলাম। টিম ম্যানেজমেন্ট এবার কোনো ঝুঁকি নিতে চায়নি। তবে আমি আশাবাদী, প্রথম ম্যাচ থেকেই খেলতে পারবো।’
বিশ্বকাপের আগে জিম্বাবুয়ে, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। টাইগারদের এমন সাফল্য বিশ্বকাপে আত্মবিশ্বাস যোগাবে বলে বিশ্বাস রিয়াদের। তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপের আগে এটি (টানা সিরিজ জয়) আমাদের জন্য ভালো ছিল। জিম্বাবুয়েতে দারুণ সিরিজ খেলেছি। দেশের মাটিতে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডকে হারিয়েছি। এটা আমাদের দলের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে।’
বোলিং বিভাগকে নিয়ে রিয়াদ বলেন, ‘স্পিনাররা অনেক বছর ধরেই আমাদের হাতিয়ার। গত কয়েক সিরিজ ধরে আমাদের বোলিং ইউনিট অনেক ভালো করেছে। ফাস্ট বোলাররাও এই সিরিজগুলোতে ভালো করেছে। আমি মনে করি স্পিন ও পেসের ভালো কম্বিনেশন আছে আমাদের। এখানে কন্ডিশন যেমনই থাকুক না কেনো, আমাদের মানিয়ে নিতে হবে। স্পিন বান্ধব উইকেট পেলে আমাদের স্পিনারদের জন্য ভালো হবে। আশা করি, ফাস্ট বোলাররাও ভালো করবে।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর