× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৯ নভেম্বর ২০২১, সোমবার , ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

আইয়ুব বাচ্চুর চলে যাওয়ার তিন বছর

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার
১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার

কীর্তিমানদের মৃত্যু নেই। তাদের চলে যাওয়া মানে শারীরিক প্রস্থান কেবল। সাফল্যে ভরা কর্মই তাদের বাঁচিয়ে রাখে অনন্তকাল। তেমনই এক কীর্তিমানের নাম আইয়ুব বাচ্চু। ছিলেন দেশীয় ব্যান্ড সংগীতের এক পুরোধা ব্যক্তিত্ব। শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ড এলআরবি’র দলনেতা, ভোকাল এবং লিড গিটারিস্ট। অনন্য স্টাইল এবং নান্দনিক দক্ষতাগুণে ‘গিটার লিজেন্ড’ উপাধি পান তিনি। প্রিয় যে কোনো একটি গিটার কাঁধে ঝুলিয়ে তিনি যখন মঞ্চে এসে দাঁড়াতেন তখন দর্শক সারিতে তুমুল আনন্দ, মুহুর্মুহু করতালি এবং তার নাম ধরে চিৎকার করে করে সীমাহীন উত্তেজনার বহিঃপ্রকাশ ঘটতো।
ভক্তকুলের ওপর এমন মায়াময় প্রভাব বিস্তারকারী মানুষটি গত তিন বছর ধরে নেই। ২০১৮ সালের আজকের এই দিনে তিনি পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছেন। আজ তার তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী। আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন একাধারে গায়ক, গীতিকার, সুরকার ও সংগীত পরিচালক। আইয়ুব বাচ্চুর জন্ম চট্টগ্রামে। সেখানেই শৈশব, কৈশোর আর তারুণ্যের কিছুটা কাটে তার। একসময় সংগীতে ক্যারিয়ার গড়ার স্বপ্ন নিয়ে ঢাকায় স্থায়ী হন। ১৯৯১ সালে গড়ে তোলেন ব্যান্ড ‘এলআরবি’। এর আগে তিনি দশ বছর ‘সোলস’ ব্যান্ডের সঙ্গে লিড গিটারিস্ট হিসেবে যুক্ত ছিলেন। সংগীত জগতে তার যাত্রা শুরু হয় ‘ফিলিংস’ ব্যান্ডের মাধ্যমে ১৯৭৮ সালে। গুণী এই শিল্পী তার শ্রোতা-ভক্তদের কাছে এবি নামেও পরিচিত। তার ডাক নাম রবিন। মূলত রক ঘরানার কণ্ঠের অধিকারী হলেও আধুনিক গান, ক্ল্যাসিকাল সংগীত এবং লোকগীতি দিয়েও শ্রোতাদের মুগ্ধ করায় দারুণ পারদর্শী ছিলেন তিনি। আইয়ুব বাচ্চুর কণ্ঠ দেয়া প্রথম গান ‘হারানো বিকেলের গল্প বলি’। এটি সোলস ব্যান্ডে থাকাকালীন গেয়েছিলেন তিনি। ১৯৯৫ সালে তিনি বের করেন তার তৃতীয় একক অ্যালবাম ‘কষ্ট’। সর্বকালের সেরা একক অ্যালবামের একটি বলে অভিহিত করা হয় এটিকে। এ ছাড়া ব্যান্ড এলআরবিকে নিয়েও প্রকাশ হয়েছে দুর্দান্ত কিছু অ্যালবাম। যে অ্যালবামগুলোর গান আকাশছোঁয়া জনপ্রিয়তা পাওয়ার পাশাপাশি দেশের সংগীত ভা-ারকে করেছে সমৃদ্ধ। আইয়ুব বাচ্চু বেশকিছু বাংলা ছবিতে প্লে-ব্যাক করেছেন। এসবের মধ্যে তার কণ্ঠ দেয়া প্রথম প্লে-ব্যাক ‘অনন্ত প্রেম তুমি দাও আমাকে’ বাংলা ছবির অন্যতম একটি জনপ্রিয় গান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর