× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার , ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

মাসকাটে টাইগারদের পাশে ‘বিসিবি বস’

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার, মাসকাট (ওমান) থেকে
১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার

বাছাই পর্বের আগেই দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কর্তারাও এ নিয়ে দারুণ বিব্রত। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হারটা মেনে নিতে পারলেও প্রশ্ন উঠছে আইরিশদের বিপেক্ষে এমন পরাজয় নিয়ে। ওমানের মাসকাটে আল আমেরাত স্টেডিয়ামে বাছাই পর্বের তিন ম্যাচে কেমন করবে বাংলাদেশ এই নিয়ে প্রশ্নেরও শেষ নেই। তবে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দলকে সাহস দিতে সেখানে হাজির হয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের তিনবারের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তিনি গতকাল মাঠে বসেই উপভোগ করেছেন জাতীয় দলের বিশ্বকাপ মিশনের প্রথম ম্যাচ। জানা গেছে বরাবরের মতোই তিনি দলকে সাহস ও পরামর্শ দিয়েছেন। কথা বলেছেন যেন তাদের আত্মবিশ্বাসে কোন ঘাটতি না হয়। বিসিবি বসের ওমান আসার বিষয়টি আগের দিনই নিশ্চিত করেছেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান। তিনি বলেন, ‘বোর্ড সভাপতি ইতিমধ্যে চলে এসেছেন ওমানে। আমাদের সঙ্গে কথাবার্তা হয়েছে, মাঠে আসবেন। আশা করছি ভালো ফলাফল করবো।’
স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করার সময়টায় দেশের ক্রিকেটের অভিভাবক নাজমুল হাসান পাপনকে পাশে পাচ্ছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদরা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সপ্তম আসরে দলের পাশে থাকতে পাপন প্রথমে যান দুবাইয়ে। এসিসির মিটিং শেষে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (আইপিএল) এর ফাইনাল মাঠে বসে উপভোগ করেন। আইপিএলের ফাইনালে টিভি ক্যামেরায় পাপনকে দেখা গেছে বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীর সঙ্গে। আরব আমিরাত থেকে শনিবার (১৬ অক্টোবর) পাপন পাড়ি জমান ওমানে। শুধু নাজমুল হাসান পাপনই নয় মাঠে খেলা দেখতে এসেছেন বিসিবির অনেক পরিচালকও। অন্যদিকে বাছাই পর্বে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আইসিসির সহযোগী তিন দেশ। যাদের তুলনায় অনেকটাই এগিয়ে টাইগাররা। তবে ছোট দল বড় দল বলে নিজেদের অহমিকা বাড়াতে চান না আকরাম খান। শুধু তাই নয়, পর পর দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে হারকেও দেখছেন মন্দের ভালো হিসেবে। শক্তিমত্তা আর পরিসংখ্যানে তিন দলের চেয়ে টাইগাররা এগিয়ে থাকলেও সহযোগী সদস্য দেশটিকে হালকাভাবে না নেয়ার পরামর্শ আকরামের। সব দলের বিপক্ষে বাংলাদেশ পূর্ণ শক্তির একাদশ নিয়ে খেলবে বলেও জানান তিনি। আকরাম বলেন, ‘তুলনা করলে ওদের চেয়ে (স্কটল্যান্ড, পাপুয়া নিউগিনি ও ওমান) আমরা অনেক ভালো দল। কিন্তু যেহেতু টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট, কোনো দলকে ছোট করে দেখা উচিৎ নয়। প্রস্তুতি ম্যাচ হারায় আমাদের অতি আত্মবিশ্বাস থাকবে না। সেদিক থেকে ভালো। কাল পূর্ণ শক্তির দল নিয়েই দল মাঠে নামবে। আরেকটা কথা হলো প্রস্তুতি ম্যাচে হেরে আমাদের জন্য ভালোও হয়েছে। যদি জিতে যেত তাহলে অতিআত্মবিশ্বাসী হয়ে দল বাছাই পর্বে মাঠে
নামতো। এতে করে ভালোর চেয়ে মন্দটাই হতো। এখন ওরা জানে কেন হেরেছে, ভুলগুলো কী ছিল। সেই অনুসারে শুধরে নেবে।’ অন্যদিকে দলের সঙ্গে থাকা নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমনও জিতবোই কথাটি জোর দিয়ে বলতে চাইলেন না। টি-টোয়েন্টি বলেই বলতে পারছেন না যে আমরাই জিতবো। তিনি বলেন, ‘আমরা জিতবোই তিন দলের বিপক্ষে বলতে পারছি না। কারণ ফরম্যাটটা টি-টোয়েন্টি। যদি ওয়ানডে হতো তাহলে বলে দিতে পারতাম ফলাফলটা কী হতে পারে। আমরা যেটা দলকে বলেছি যেন তারা নিজেদের সহজ ও সাধারণ খেলাটাই মাঠে উপহার দেয়।‘

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর