× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার , ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

যুবলীগ চেয়ারম্যানের সিম ক্লোন করে চাঁদাবাজি

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার
১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার

যুবলীগের চেয়ারম্যান ফজলে শামস পরশের সিম ক্লোন করে চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটছে। দেশের বিভিন্ন জেলার আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতাদের ফোন করে যুবলীগ চেয়ারম্যানের পরিচয় দেয়া হচ্ছে। কাউকে ফাঁসানোর ভয় দেখানো হচ্ছে। কারও কারও কাছে চাওয়া হচ্ছে চাঁদা। এভাবে প্রতারকরা লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তবে বিভিন্ন নেতাকর্মীদের ফোন পেয়ে নড়েচড়ে বসেছেন শেখ ফজলে শামস পরশ। নিজের ব্যবহৃত নম্বরটি ক্লোন হয়েছে বুঝতে পেরে তার পক্ষ থেকে থানায় মামলা করা হয়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৪ ও ২৬ ধারায় মামলাটি করেছেন ব্যারিস্টার রানা তাজউদ্দিন খান।
মামলাটি তদন্ত করছে ডিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি) সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ।
সিটিটিসি সূত্র জানিয়েছে, পরশের ব্যবহৃত রবি নম্বরটি ক্লোন করে গত ৯ই অক্টোবর প্রথম ফোন করা হয় গাইবান্ধা যুবলীগের সভাপতি সরদার মো. শাহীন হাসান লোটনের গ্রামীণফোনের নম্বরে। সংগঠনের জন্য চাঁদা হিসেবে তাকে একটি রকেট নম্বরে টাকা পাঠাতে বলা হয়। একই দিন নেত্রকোনা যুবলীগের আহ্বায়ক জনি ও সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগের চপলকে ফোন করে বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠাতে বলা হয়। ১০ই অক্টোবর মুশফিকুল ইউনুস জায়গীরদার নামে এক ব্যক্তি এবং পাবনা জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক সনি বিশ্বাসকে ফোন করে বিকাশে টাকা চাওয়া হয়। এ ছাড়াও গত কয়েকদিনে একই পরিচয়ে দেশের কয়েকজন গণ্যমান্য ব্যক্তির ফোন করে টাকা দাবি করে প্রতারক চক্রটি।
শনিবার রাতে নিজের ভেরিফায়েড পেজ থেকে বিষয়টি নিয়ে একটি পোস্ট দিয়েছেন পরশ। পোস্টের শিরোনাম ছিল ‘সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি। যুবলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীসহ সকলকে এই মর্মে সতর্ক করা যাচ্ছে যে, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সম্মানিত চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের মোবাইল নম্বর ক্লোন করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে ফোন করে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টাসহ নানা বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে একটি প্রতারক চক্র। অনুগ্রহপূর্বক কেউ প্রতারক চক্রের ফাঁদে পা দিবেন না।’
সাইবার ক্রাইমের সিনিয়র সহকারী কমিশনার (এসি) ধ্রুব জ্যোতির্ময় গোপ মানবজমিনকে বলেন, মামলার তদন্ত চলছে। আসামি শনাক্তের চেষ্টা চলছে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর