× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৯ নভেম্বর ২০২১, সোমবার , ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

অকাস নিয়ে ইন্দোনেশিয়া মালয়েশিয়ার উদ্বেগ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) অক্টোবর ১৯, ২০২১, মঙ্গলবার, ৭:৪৭ অপরাহ্ন

অস্ট্রেলিয়া, বৃটেন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সম্পাদিত অকাস পারমাণবিক চুক্তি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়া। এই চুক্তির অধীনে অস্ট্রেলিয়াকে পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন তৈরির প্রযুক্তি সরবরাহ দেয়া হবে। এর বাইরে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির কোনো পরিকল্পনা নেই। তা সত্ত্বেও ওই দুটি দেশ উদ্বেগ জানিয়েছে। সোমবার ত্রিপক্ষীয় ওই চুক্তির বিষয়ে উল্লেখ করেছেন মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন আবদুল্লাহ। বলেছেন, এই চুক্তির প্রভাব নিয়ে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার এই দুটি দেশ সমানভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করছে। ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেত্নো মারসুদির সঙ্গে বৈঠকের পর যৌথ সংবাদ সম্মেলন করেন সাইফুদ্দিন। তিনি বলেন, আমাদের প্রতিবেশী একটি দেশ এই নতুন পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন কিনছে।
এমনকি তাদের পারমাণবিক অস্ত্রের সক্ষমতা নেই। এ জন্য আমরা উদ্বিগ্ন ও শঙ্কিত। উল্লেখ্য, পূর্ব ও দক্ষিণ চীন সাগরে যখন ক্রমশ উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছে তখন কয়েক শত কোটি ডলারের এই সাবমেরিন কেনার চুক্তি করেছে অস্ট্রেলিয়া।
 এর আগে মালয়েশিয়া বলেছিল, তারা চীন ও আসিয়ানের ইস্যুতে দৃষ্টি দেবে। ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা মিয়ানমারের সামরিক জান্তার বিষয়েও হতাশা প্রকাশ করেন। কারণ, আসিয়ান এর আগে শান্তির জন্য যে পরিকল্পনা দিয়েছিল, তা বাস্তবায়ন করেনি সামরিক জান্তা। এ কারণে মিয়ানমারের সামরিক শাসক মিন অং হ্লাইংকে আসিয়ানের বার্ষিক সম্মেলন থেকে বাদ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে শুক্রবার। এটা এক বিরল পদক্ষেপ আসিয়ানের জন্য। ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেত্নো মারসুদি বলেছেন, মিয়ানমারকে অব্যাহতভাবে মানবিক সহায়তা দিয়ে যাবে আসিয়ান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর