× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৯ নভেম্বর ২০২১, সোমবার , ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে শেখ রাসেল দিবস পালিত

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার
১৯ অক্টোবর ২০২১, মঙ্গলবার

‘শেখ রাসেল দীপ্ত জয়োল্লাস অদম্য আত্মবিশ্বাস’- এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে শেখ রাসেল দিবস উদ্‌যাপন উপলক্ষে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে গতকাল দিনব্যাপী কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল, এনডিসি ‘শেখ রাসেল সম্পর্কে জানি ও জানাই’ প্রত্যয়ে বিএনসিসি ক্যাডেট এবং মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর/সংস্থা প্রধানদের হাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা ‘আমাদের ছোট রাসেল সোনা’ সহ শেখ রাসেলকে নিয়ে লেখা বেশকিছু সংখ্যক বই উপহার হিসেবে তুলে দিয়ে দিনের কর্মসূচির সূচনা করেন। আইএসপিআর জানিয়েছে, পরবর্তীতে শেখ রাসেল দিবসের প্রতিপাদ্য নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিনিয়র সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল, এনডিসি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট কালোরাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে ঘাতকদের হাতে নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হন জাতির পিতার কনিষ্ঠ সন্তান ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র শেখ রাসেল। সেদিন শিশু রাসেলকে হত্যা করার মধ্যদিয়ে ঘাতকরা রাসেলের জীবনকেই শুধু কেড়ে নেয়নি, সেই সঙ্গে ধ্বংস করেছে তার অবিকশিত অপার সম্ভাবনা যা সুন্দর ও শান্তিময় বাংলাদেশ এবং বিশ্ব গড়ার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারতো। তাই তো বাঙালির হৃদয়জুড়ে রয়েছে শিশু শেখ রাসেল। শেখ রাসেল আজ বাংলাদেশের শিশু-কিশোরসহ সকলের কাছে ভালোবাসা ও অনুপ্রেরণার নাম। যারা এদেশকে ভালোবাসে, যারা জাতির পিতাকে ভালোবাসে, যারা এদেশের উন্নয়ন এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণের অংশীদার তারা সকলেই শিশু শেখ রাসেলের মর্মান্তিক জীবনাবসানের বেদনা হৃদয়ে ধারণ করে বাংলার প্রতিটি শিশু-কিশোর তরুণের মুখে হাসি ফোটাতে আজ বদ্ধপরিকর।
সভায় অংশগ্রহণকারী অন্যান্য বক্তাগণ শেখ রাসেল সম্পর্কে আবেগঘন আলোচনা করেন। পরিশেষে, শেখ রাসেলসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টে শাহাদতবরণকারী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ও অন্যান্য শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা ও দোয়া করা হয়।
আইএসপিআর পরিদপ্তরে শেখ রাসেল দিবস পালিত: আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর)-এ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের ওপর আলোচনা ও তার আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়ার মাধ্যমে শেখ রাসেল দিবস পালিত হয়েছে। আইএসপিআর পরিদপ্তরের পরিচালক লে. কর্নেল আবদুল্লাহ ইবনে জায়েদ শেখ রাসেল দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা করেন। পরিদপ্তরের সকল স্তরের কর্মকর্তা- কর্মচারীগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর